৬ মাস শামীমের সাথে শুধু ফোনে কথা হয়েছেঃ সেলিম ওসমান

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আজ প্রায় ৬ মাস শামীমের সাথে শুধু ফোনে কথা হয়েছে দেখা
হয়নি। ওর বাড়িতে করােনা হয়েছে আমি
খোঁজ নিয়েছি, আমার বাড়িতেও ও খোঁজ
নিয়েছে।
৮ নভেম্বর (রােববার) সন্ধ্যায় সিটি কর্পোরেশন,
সদর ও বন্দর উপজেলা পরিষদ এবং ইউনিয়ন।
পরিষদের জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে ফতুল্লার।
উইজডম এ্যাটায়ার্স লিমিটেডে এক মতবিনিময়
সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।
নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম
সেলিম ওসমান।
ভাই শামীম ওসমান প্রসঙ্গে সেলিম ওসমান
বলেন, নারায়ণগঞ্জে অনেকগুলাে পতিতালয়
ছিল, আজ একটাও নাই। আমার ছােট ভাই
শামীম ওসমান সাহস করে কাজ করেছিলেন,

বলেই সম্ভব হয়েছে।
চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর ও মেম্বারদের উদ্দেশ্যে
করে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য
বলেন, সকল জনপ্রতিনিধিদের কাছে অনুরােধ
আখেরাত পেতে চাইলে করােনার শুরুতে যেভাবে
কাজ করেছিলেন সেভাবে কাজ করেন। আমরা
প্রতিটা ওয়ার্ড এ ভলান্টিয়ার তৈরি করেছিলাম,
কেউ অনাহারে থাকেনি, আর ২ টা মাস আপনারা
সেভাবে কাজ করেন অন্তত।
নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক
আবুল জাহেরের কথা স্মরণ করে সেলিম ওসমান।
বলেন, আমার আবু জাহের নাই বলে বন্দরটা
কানা হয়ে গেছে। প্রতি ২ দিনে অন্তত একবার
কথা হতাে জাহের ভাইয়ের সাথে। আমরা
জনপ্রতিনিধি হয়েছি মানুষের সেবা করার জন্য।
জাহের সাহেবের মাধ্যমেই আমি সাধারণ মানুষের
খুব কাছে গিয়েছি।
মতবিনিময় সভা শেষে বিদায় নেয়া জনপ্রতিনিধি
ও মুক্তিযােদ্ধাদের আত্মার মাগফেরাত কামনায়
এবং সেলিম ওসমানের দীর্ঘায়ু কামনায় দোয়া
করা হয়।
উক্ত সভায় আরাে উপস্থিত ছিলেন, বন্দর
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ রশিদ,

বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) শুক্লা
সরকার, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মাে
ফখরুদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপােরেশন ১১,
১২, ২০, ২৩, ২৪ সহ অন্যান্য ওয়ার্ডের
কাউন্সিলরবৃন্দ, সদর ও বন্দর উপজেলা ও
ইউনিয়ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিরা।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin