৫ আঙুলে সুই ঢুকিয়ে নির্যাতন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ১১ নভেম্বর। এ সংগঠনে নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু। ২০০৫ সাল থেকেই তিনি এ পদে। পেশায় একজন ব্যবসায়ী। নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স ও বিকেএমই এর পরিচালক।

নিউজ নারায়ণগঞ্জকে শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু বলেন, ২০০৫ সাল থেকে নারায়ণগঞ্জ শহর ও মহানগর যুবলীগ প্রতিটি নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শে কাজ করে যাচ্ছে। অন্যান্য জায়গায় যুবলীগের নেতাদের ব্যপারে কলঙ্ক পাওয়া গেলেও নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের নেতাদের ব্যাপারে কোন কলঙ্ক পাওয়া যায়নি। নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগ সবসময় সুসংগঠিত ছিল।

তিনি আরো বলেন, শহর ও মহানগর যুবলীগের ২০০৫ সাল থেকে আজকে পর্যন্ত প্রতিটি নেতাকর্মীদের নিয়ে আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শে কাজ করে যাচ্ছে। সেই যুবলীগ এখন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বাংলাদেশ রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন বার ক্ষমতা থাকার পিছনে রাজপথে কাজ করে যাচ্ছে, আগামীতে যাবে। আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছেন। সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তিনি ইতিমধ্যে ২০২১ ও ২০৪১ ভিশন বাস্তবায়নে সকলকে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। জরুরী অবস্থা সময় শহর যুবলীগের সকল নেতাকর্মীরা যখন আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা মুক্তি দাবিতে শামীম ওসমানের নিদের্শে সাইনবোর্ড-পূর্বাঞ্চল মহাসড়ক বন্ধ করে দিয়ে ছিলাম। তখন শহর যুবলীগের আমি, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নিপু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা জুয়েলের নেতৃত্বে হাজারো নেতাকর্মীরা জরুরী অবস্থা চলাকালে শেখ হাসিনার মুক্তি দাবির স্লোগানে মহাসড়ক বন্ধ দেয়। সে জের ধরে আমাকে চাষাঢ়া থেকে গ্রেপ্তার করে নির্যাতন করা হয়েছিল। শেখ হাসিনার মুক্তি দাবিতে স্লোগান দেয়া জের ধরে আমার ৫টি আঙ্গুলে সুই ঢুকিয়ে ঘণ্টা পর ঘণ্টা নির্যাতন করা করে ছিল। দীর্ঘ বছর যাবৎ শেখ হাসিনার আদর্শে পরিচালিত শহর মহানগর যুবলীগের কোন নেতাকর্মীর নামে কোন কলংক নেই।

সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে আলোচিত দুই মেরুর মধ্যে উত্তর মেরুর নেতৃত্ব দেন ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবার এবং দক্ষিণ মেরুর নেতৃত্ব দিয়ে থাকেন প্রয়াত আলী আহাম্মদ চুনকার পরিবার। এই দুই পরিবারের সদস্যরা নারায়ণগঞ্জের প্রায় প্রত্যেকটি অঙ্গসংগঠনের কমিটিতেই প্রভাব বিস্তার চেষ্টা করে থাকেন। ফলে তাদের রেষারেষিতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও তাদের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের অনেক কর্মসূচিই আলাদা আলাদাভাবে পালিত হয়ে থাকে। সেই সূত্র ধরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও শহর যুবলীগও দীর্ঘদিন ধরে আলাদাভাবে আলাদাভাবে কর্মসূচি পালন করে আসছে।

সূত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin