১৮ মাস পর রহস্য উৎঘাটন: ৫’শ টাকার জন্য ৮ বন্ধুর হাতে ১ বন্ধু খুন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

৫’শত টাকার জন্য ঘাড় চেপে মাথা ও মুখ পানিতে নিমজ্জিত করে নিমর্মভাবে বন্ধুকে হত্যার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পিবিআই।

৬ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন’র (পিবিআই) পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

রূপগঞ্জে ২০১৯ সালের ১ মে তাসিন নামের এক ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছিল। হত্যাকান্ডের ১৮ মাস পর রহস্য উৎঘাটন করা হয়েছে।

নিহত তাসিন হত্যা মামলার সন্দেহজনক আসামী মো.নজরুল ইসলাম(২২)। ৪ নভেম্বর ভোর রাতে ভোলার ভেদুরিয়া থানার মৃত আ.মালেকের ছেলে নজরুলকে ঢাকার খিলগাঁও এলাকা থেকে নজরুলকে গ্রেপ্তার করে পিবিআইয়ের একটি বিশেষ টিম। নজরুল পুলিশ ও আদালতে জবানবন্দি দেয় যে, খিলগাঁও রেলগেট হইতে ৮নং রুটে সিএনজি চালায়। তাহার টাকার প্রয়োজন হওয়ায় সে তাহার প্রতিবেশী বন্ধু মো. তাসিন এর নিকট হইতে ঘটনার আনুমানিক ২মাস পূর্বে ৫০০ টাকা ধার নেয়। ধার নেয়ার ৮ দিন পরেই তাসিন তার পাওনা টাকা ফেরত চায়। মো. নজরুল ইসলাম ৪/৫ দিন সময় চাইলে তাসিন তাকে গালাগালি করে, হুমকি দেয়। এর ২ দিন পর তাসিনের আচরনে ক্ষিপ্ত হইয়া মো. নজরুল ইসলাম তাহার বন্ধু শুক্কুর এর সাথে শলাপরামর্শ করে এবং তাসিনকে উচিৎ শিক্ষা দেওয়ার জন্য মেরে ফেলার পরিকল্পনা করে।

পরিকল্পনানুসারে ২০১৯ সালের ১মে বেলা আনুমানিক ১১টার সময় মোঃ নজরুল ইসলাম, মোঃ শাওন (১৯), মোঃ ইমরান (২০), মোঃ শামীম (১৯), মোঃ আব্বাস (১৯), তাহের, নাদিম, শুক্কুর আলী, তাসিনকে নিয়া দুইটি সিএন্ডজি অটোরিক্সা যোগে রওয়ানা হইয়া বেলা ১২ টা ৩০ মিনিটে পূর্বাচল ৩০০ ফুট রাস্তার নিকট কাঞ্চন, এলাকার লেকে যায়। হোটেলে চা নাস্তা করে। সিএনজি থেকে সবাই লেকের পারে নামে।

পরে পূর্ব পরিকল্পনানুসারে ইমরান, আব্বাস, শুক্কুর, তাহের, নাদিম, শাওন, তাসিন সহ মোঃ নজরুল ইসলাম লেকের পানিতে নামে। শামীম লেকের পাড়ে দাড়াইয়া থাকে। একপর্যায়ে আসামী মোঃ নজরুল ইসলাম ও শুক্কুর অন্যান্যদের বলে তাসিনকে ধর। তখন শাওন তাসিনের হাত ধরে, শুক্কুর তাসিনের গলায় ধরে, ইমরান তাসিনের পা ধরে, মোঃ নজরুল ইসলাম তাসিনের ঘাড়ে ধরিয়া মাথা ও মুখ পানিতে ডুবাইয়া রাখে। কিছুক্ষন পরে তাহাদের হাত থেকে ছুটে তাসিন পানির নীচে চলে যায়। তাসিনের মৃত্যু নিশ্চিত করিয়া তাসিনের লাশ লেকের পানিতে ফেলে বাসায় চলে আসে বলে আসামী মোঃ নজরুল ইসলাম পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারর করা সহ ১৬৪ ধারা মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী প্রদান করে। ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্য পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত আছে।

সূত্রঃলাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin