সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ সেক্রেটারীর বিরুদ্ধে ফেসবুক লাইভ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

জমি সংক্রান্ত বিরোধ সমাধানের আশ্বাস দেওয়ায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়ার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। সিদ্ধিরগঞ্জে মিজমিজি সাহেবপাড়া কান্দাপাড়া এলাকায় ৪ ভাইয়ের মধ্যে চলমান জমি সংক্রান্ত বিরোধ সমাধানের আশ্বাস দিলে জমির মালিক মহিউদ্দিনের স্ত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক লাইভে এ অপপ্রচার চালান।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মিজমিজি কান্দাপাড়া এলাকা আফসার উদ্দিন ৩৩ শতাংশ জমি রেখে ২০১৬ সালে মারা যান। আফসার উদ্দিন মারা যাওয়ার পর জমির বন্টন নিয়ে বড় ভাই মহিউদ্দিনের সাথে ছোট ৩ ভাই নাসিরউদ্দীন, নাজিমউদ্দীন ও জিয়াউদ্দীনের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনায় আদালতে পাল্টা পাল্টি মামলা হয়েছে। এ জমি নিয়ে বড় ভাই মহিউদ্দিনের সাথে ছোট ৩ ভাইয়ের গত কয়েক দিন যাবত ঝগড়া ও মনমালিন্য চলে আসছিল। পরে শুক্রবার ৬ অক্টোবর ছোট ৩ ভাই তাদের মা তহুরা বেগমকে নিয়ে বিষয়টি সমাধান করার জন্য সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মো: ইয়াছিন মিয়ার দারস্থ হন। পরে তিনি এ বিষয়টি নিয়ে সোমবার ১২ অক্টোবর সার্ভেয়ার নিয়ে স্থানীয় গ্রাম্য মাতাব্বরদের এক সমঝোতা বৈঠকের মাধ্যমে সমাধানের করে দেওয়ার জন্য উভয় পক্ষকে অনুরোধ করেন।

এদিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া সমাধান করার আশ্বাস দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে বড় ভাই মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রী মিলে শনিবার ফেসবুক লাইভে অপপ্রচার চালান।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া বলেন, ৮০ বছরের বৃদ্ধা তহুরা বেগম তার ৩ ছেলে নাসিরউদ্দীন, নাজিমউদ্দীন ও জিয়াউদ্দীনকে সাথে নিয়ে আমার অফিসে আসেন। বড় ছেলে মহিউদ্দিনের সাথে ছোট ৩ ছেলের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিল। তাদের মায়ের অনুরোধে আমি স্থানীয় গ্রাম্য মাদবরদের এ বিরোধটি সমাধান করে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছিলাম। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বড় ছেলে মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রী মিলে শনিবার ফেসবুক লাইভে গিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালান।

সূত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin