সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক সেবনে বাঁধা দেয়ায় হামলা-ভাংচুর, আহত ৩

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ মহানগরীর সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক সেবনে বাঁধা প্রদান করায় ক্ষিপ্ত হয়ে খালেক এন্টারপ্রাইজ নামে একটি কসটেপ কারখানায় দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও কারখানার শ্রমিকদেরকে মারধর করেছে এলাকার বখাটে মাদক সেবীরা।

এ ঘটনায় ওই কারখানার তিন শ্রমিক গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতরা হলো, মো: শফিকুল ইসলাম (৪৫), মো: টিপু সুলতান (৩৫) ও মো: হাসান (২৫)। গত বুধবার রাতে মহানগরীর ১ নং ওয়ার্ডের মিজমিজি ধনুহাজী রোড এলাকাস্থ ওই কসটেপ কারখানায় এ ঘটনাটি ঘটে।

আহতদের উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টরিয়া) হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে রাতেই খালেক এন্টারপ্রাইজের মালিক মো: হেলাল উদ্দিন বাদী হয়ে মিজমিজি ধনুহাজী রোড এলাকার কামালের ছেলে সায়েম (২৫), একই এলাকার রাকিব (২০), রাফাত (২৫), ফাহিম (২০), মো: আমান (২০), রাফি (২৫), রাব্বি (২২) ও রোমান সহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে কারখানার মালিক হেলাল উদ্দিন জানায়, মাদকসেবী সায়েম সহ অজ্ঞাতনামা বখাটেরা সব সময় আমার কারখানার সামনে আড্ডা দিয়ে মাদক সেবন করে এবং শ্রমিকদেরকে উত্যক্ত করে। বিষয়টি নিয়ে আমি প্রতিবাদ করলে মাদকসেবীরা আমার সাথে খারাপ আচরণ কওে হুমকি-ধমকি দেয়।

তারই সূত্র ধরে গত ৩০ মার্চ বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় বখাটে সায়েমের নেতৃত্বে উল্লেখিত মাদকসেবীরা সহ অজ্ঞাতনামা বখাটেরা দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়া আমার কারখানায় হামলা ভাংচুর চালায়। এসময় তারা আমাকে হত্যা চেষ্টা চালায়।

আমার শ্রমিক শফিকুল ইসলাম, টিপু সুলতান ও হাসান প্রতিবাদ করিলে হামলাকারীরা তাদেরকে ইট ও লাঠি-সোঠা দিয়ে বেধরক মারপিট করে। এতে তারা গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়। এসময় হামলাকারীরা আমাকে সুযোগ মত দেখে নেওয়ার হুমকি সহ আমার কারখানা আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

অভিযোগে তিনি আরো উল্লেখ করেছেন, হামলাকারীরা অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির লোক। তাদের দ্বারা যে কোন সময় আমার কারখানার ক্ষতিসহ জান মালের বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কা করছি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হামলাকারী মাদকসেবীরা গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের পক্ষে কাজ করেছে। নির্বাচনের পর থেকে এই সিন্ডিকেটের সদস্যরা স্থানীয় বাসিন্দাদের হুমকি-ধমকি দিয়ে এলাকায় নানান অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। এলাকাবাসী তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ।

অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুর রহমান জানান, ঘটনার দিন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে ছিলাম। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin