সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা পেলেন মাসদাইরের টিটু প্রধান

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা পেয়েছেন নারায়ণগঞ্জের মাসদাইরের সন্তান বিশিষ্ট কবি ও লেখক মোঃ টিটু প্রধান।

গতকাল স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গুণীজন সংবর্ধনা-২০২১ এর জমকালো এক অনুষ্ঠানে এই সম্মাননা দেওয়া হয় টিটু প্রধানকে। গতকাল বিকেল ৩ টায় ইন্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট মিলনায়তন, রমনায় জমকালো এই আয়োজন শুরু হয়ে রাত ১০ টা পর্যন্ত চলে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসা কবি ও সাহিত্যানুরাগী গুণীজনদের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ১০৮ টি সম্মাননা প্রদান করা হয়।

মাসদাইরের ছেলে মোঃ টিটু প্রধান কে সাহিত্যে বিষেশ অবদানের জন্য কবি ও সংগঠক সম্মাননায় ভূষিত করা হয়।২০১১একুশে বই মেলায় কবি মোঃ টিটু প্রধানের প্রথম বই বিলুপ্ত লেখার মশাল প্রকাশিত হয়। এর পরে মানুষ, প্রবাস বাংলা, ঐক্যতান,ঢেউ, সেতু সহ অসংখ্য যৌথ কবিতা ও ছোট গল্পের বইয়ে তার কবিতা ও গল্প স্থান পায়।

সম্মানিত অতিথিদের আগমনের সাথে সাথে নির্দিষ্ট সময়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদের ৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও গুণীজন সংবর্ধনা-২০২১ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ এনামুর রহমান, এম,পি (গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়)
উদ্ভোদক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত কবি অসীম সাহা।


প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও অভিনেতা এবিএম সোহেল রশিদ।বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কবি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক টিপু রহমান।
বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি মোসলেহ উদ্দিন, প্রতিষ্ঠাতা প্রধান নির্বাহী, প্রিয়জন সাহিত্য পরিষদ।


সভাপতিত্ব করেছেন কবি মুন্সি কবির হোসেন, উপদেষ্টা, স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনার সমন্বয়ক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি কে এম সফর আলী, প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদ।


শুভেচ্ছা বক্তব্য রেখেছেন কবি ফেরদৌসী আক্তার নদী, উপদেষ্টা, স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদ।
অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন তাসনিয়া রহমান, মেঘলা জান্নাত, মাসুম ও নূর তাজ।


সার্বিক তত্বাবধানে স্বাধীন বাংলা সাহিত্য পরিষদের সিনিয়র পরিচালক কবি হাফিজুর রহমান হাফিজ। মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর কাছে কবিদের জীবিত অবস্থায় সম্মান ও সাহিত্যের অনুষ্ঠান পরিচালনা করার জন্য কবি ভবনের দাবি নিয়ে আলোচনা করেন প্রধান আলোচক কবি এবি এম সোহেল রশিদ, প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মাননীয় প্রতিমন্ত্রী কবিদের সম্মান ও দাবির কথা আমলে নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কবি ভবনের দাবি তুলে ধরে জমি বরাদ্দের প্রতিশ্রুতি আদায়ে সক্ষম হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন। এবং কবিদের অসহায় মুহূর্তে যেন পাশে থেকে তাকে সাহায্য করা যায় সে ব্যাপারে ট্রাস্টি গঠন করার পরিকল্পনা করা হবে বলেও জানান।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin