সরকারী চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩২ করার দাবি

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবি জানিয়েছে ‌‘চাকরীপ্রত্যাশী যুব প্রজন্ম’ নামের একটি প্ল্যাটফর্ম। শুক্রবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানানো হয়।

এতে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটির মুখপাত্র মানিক রিপন বলেন, ‘গত ১ আগস্ট গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয় যে, করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত চাকরিপ্রত্যাশীদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ২১ মাস ব্যাকডেট (বয়স ছাড় পদ্ধতি) আসছে। যেটা সকল বয়সী শিক্ষার্থীদের জন্য এলে একটি বৈষম্যমূলক পদ্ধতি হয়ে যায়।

প্রথমত সরকারের পক্ষ থেকে করোনায় বয়সজনিত ক্ষতির বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে এটি একটি শুভ ইঙ্গিত। তবে ব্যাকডেট দেওয়া বা সমন্বয়ের মাধ্যমে সব বয়সী শিক্ষার্থী তথা চাকরিপ্রত্যাশীদের ক্ষতিপূরণ সম্ভব নয়। করোনা শুধু ৩০ বছর অতিক্রম করে যাওয়া চাকরিপ্রত্যাশীদেরই ক্ষতি করেনি, বরং সব বয়সীদের ক্ষতি করেছে। এখন ব্যাকডেট দিলে যাদের বয়স ৩০ পার হয়েছে তাদের জন্য কোনোরকম উপকার হলেও যাদের বয়স এখন ২৭, ২৮ বা ২৯ তারা চরমভাবে বঞ্চিত ও বৈষম্যের শিকার হবে। কেননা তারাও তাদের বয়স থেকে ২টি বছর হারিয়ে ফেলেছেন, যার কোনো ক্ষতিপূরণ ব্যাকডেট প্রক্রিয়ায় হচ্ছে না। এমনিতেও তারা এসব সার্কুলারে আবেদন করতে পারবেন। ’


তিনি বলেন, ‘২১ মাস যে ব্যাকডেটের কথা বলা হচ্ছে, তার মধ্যে ১৭ মাস ইতোমধ্যেই পেরিয়ে গেছে। তাই চাকরিতে আবেদনের বয়স স্থায়ীভাবে দুই বছর বাড়িয়ে ৩২ বছর করলে সকলেই তাদের হারিয়ে যাওয়া সময় দুই বছর ফিরে পাবে।
তাই সরকারের কাছে অবিলম্বে চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার জোর দাবি জানাচ্ছি। ’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin