সন্তানের সামনে প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

জমি নিয়ে পূর্বের দন্ধ। সেই জেরেই দল বেধে এসে সন্তানের সামনেই ‘রেপ করার চেষ্টা’ করে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে। ব্যর্থ হয়ে করেন হত্যার চেষ্টা। চিৎকার করলে পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় বলে যায়, আইনের আশ্রয় নিলে ‘জনসম্মূখে রেপ করবো’।
নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে শনিবার (১৩ মার্চ) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে কান্না জড়িত কন্ঠে বন্দরের মুসাপুর ইউনিয়নের বারপাড়ার মুক্তা বেগম টুম্পা কথা গুলো বলছিলেন।

অভিযোগ তুলছিলেন একই এলাকার মনির, আলী আকবর, নাসির, ওয়াসিম, বাবুল, জহিরুল, মাসুম, আমু, আল আমিনদের উপর। এ সময় পাশেই বলেছিলেন মুক্তা বেগম টুম্পা, বেগমের ৭ বছরের শিশু সন্তান ও তাঁর বড় বোন।

মুক্তা বেগম টুম্পা বলেন, আমাদের বাড়ির জায়গা বুঝে না পাওয়ায় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে সম্প্রতি অভিযোগ করেছিলাম। পরে পুলিশের সহযোগীতায় জমি ফিরে পেয়েছি। সেই থেকেই আমার সাথে পুলিশ সদস্যদের জড়িয়ে মিথ্যাচার শুরু করে। আমি আমার ছেলেকে নিয়ে একটি ফ্লাটে থাকি। তারই ধারাবাহিকতায় ১২ মার্চ রাতে অভিযুক্তরা আমার ফ্লাটে ডুকে সন্তানের সামনেই ‘রেপ করার চেষ্টা’ করে। ব্যর্থ হয়ে করেন হত্যার চেষ্টা। চিৎকার করলে ৩০ হাজার টাকা মূল্যের একটি মোবাইল, ২ ভরি ওজনের চেইন ও ১ ভরি ওজনের স্বর্ণের ব্যাচলেট নিয়ে পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় বলে যায়, আইনের আশ্রয় নিলে ‘জনসম্মূখে রেপ করবো’।

মুক্তা বেগম টুম্পা বলেন, ‘স্থানীয় কিছু মহিলাদের মুখ দিয়ে আমার বিরুদ্ধে আাজে-বাজে কথা বলিয়ে ভিডিও বানায়। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে আমার মান-সম্মান নষ্ট করে ফেলেছে। আমার সতিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। আমার স্বামীর সম্মান নষ্ট করেছেন। এখন নিরাপত্তা হীনতা ও মানসম্মানের ভয়ে নিজ বাড়ি ছেলে কাশিপুরের ফুফুর বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমার দাবী, এ সকল সন্ত্রাসীরা যাতে আর কোন অসহায় নারীদের চরিত্র নিয়ে কথা না বলতে পারে, সন্ত্রাসী হামলা নাকরতে পারে; সে ব্যাপারে আমি আপনাদের সহযোগীতা ও প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin