সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটিতে জেগে উঠলো না.গঞ্জ বিএনপি

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। সারাদেশেই রয়েছে তাদের জনসমর্থন রয়েছে কর্মীবাহিনী। কিন্তু এই জনসমর্থন ও কর্মীবাহিনী থাকা সত্ত্বেও রাজধানীর পার্শ্ববর্তী জেলা নারায়ণগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মীরা দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে তেমন একটা ভূমিকা রাখতে পারছিলেন না। প্রায় সকল আন্দোলন সংগ্রামেই তাদের নিরব ভূমিকা লক্ষ্য করা যেত। কর্মসূচি পালন করলেও সেটা গলির মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। রাজপথে তাদের দেখা মিলত না।

কিন্তু নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটি হওয়ার পর থেকেই নেতাকর্মীদের মধ্যে যেন গণজোয়ার উঠেছে। বিএনপির নেতৃত্বে আসলেন আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। আর তাদের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা জেগে উঠেছেন। তারা নতুনরুপে ফিরে এসেছেন নারায়ণগঞ্জের রাজপথে। মনে হয় যেন এমন নেতৃত্বের অপেক্ষায়ই ছিলেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির দ্বিতীয় কর্মসূচি ছিল দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে করা মামলায় চার্জগঠন ও গ্রেফতারি পরোয়ানার প্রতিবাদে মানববন্ধন। ১৬ জানুয়ারী শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

আর এই মানববন্ধনকে ঘিরে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ছিল সরগরম উপস্থিতি। নারায়ণগঞ্জের প্রায় প্রত্যেক এলাকা থেকে একের পর এক খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে আসতে আসতে মানবববন্ধন বিশাল সমাবেশে পরিণত হয়। নেতাকর্মীদের উপস্থিতি দেখে মনে হয়নি যে তারা দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে রয়েছেন। আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে যেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা বহু দিন পর প্রাণ ফিরে পেয়েছেন।

যে বিএনপি কোনো কর্মসূচি নিয়ে প্রেসক্লাবের গলি থেকে বের হতে পারতো না সেই বিএনপি রাজপথে এসে বিশাল মাননববন্ধন করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদের পরিচালনায় আহবায়ক কমিটির প্রায় সকল সদস্যরাই উপস্থিত ছিলেন। একই সাথে নেতাকর্মীদের বিশাল অংশগ্রহণে পুলিশে কোনো বাধা ছাড়াই তাদের দলীয় কর্মসূচি পালন করছেন। যা গত কয়েকবছরে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে দেখা মিলেনি। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি প্রেসক্লাবের গলির মধ্যে সীমাবদ্ধ থেকে গেলেও এবার অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ও অধ্যাপক মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে রাজপথে নেমে এসেছেন।

এর আগে গত ৩১ ডিসেম্বর রাতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির ঘোষণা দিয়েছিলেন। আর এতে আহবায়ক করা হয় অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে এবং সদস্য সচিব করা হয় অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে। আর এই কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে দিয়ে নেতাকর্মীদের সমাগম ঘটিয়ে চলছেন।

দলীয় সূত্র বলছে, ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী জেলা বিএনপির ২৬ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামানকে সভাপতি ও জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মামুন মাহমুদকে সাধারণ করে জেলা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়। তবে ওই কমিটি নারায়ণগঞ্জ তেমন একটা প্রভাব ফেলতে পারেনি।এরপর ২০১৯ সালের ২৩ মার্চ দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান এবং সেক্রেটারী অধ্যাপক মামুন মাহমুদ সহ ২০৫ জনের পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা দিয়েছিলেন। আর এই পূর্ণাঙ্গ কমিটিও দলীয় আন্দোলন সংগ্রামে জোড়ালো কোনো ভূমিকা রাখতে পারেনি। প্রায় সকল কর্মসূচিতেই তাদের নিরব ভূমিকা লক্ষ্য করা যেত।

কর্মসূচিতে অধ্যাপক মামুন মাহমুদ উপস্থিত থাকলেও সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান প্রায় সব কর্মসূচিতেই অনুপস্থিত থাকতেন। সেই সাথে নেতাকর্মীদেরও উপস্থিতি থাকতো হাতেগুনা। এবার আহবায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার ও সদস্য সচিব মামুন মাহমুদের নেতৃত্বে সেই গন্ডি থেকে বেরিয়ে আসছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

সূত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin