সংক্রমণ ঠেকাতে ঈদের ছুটি সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে: প্রতিমন্ত্রী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এবার ঈদে ছুটি সংক্ষিপ্ত করার পাশাপাশি সবাইকে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। এ কারণে বুধবার (১২ মে) ২৯ রোজায়ও সকল চাকরিজীবীদের ঢাকায় রাখতে সরকারি অফিস খোলা থাকবে বলে জানিয়েছে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

ঙ্গলবার (১১ মে) গণমাধ্যমকে তিনি এসব কথা বলেন। নিয়মানুযায়ী, রমজান মাস ২৯ দিনে শেষ হলে তিন দিন আর ৩০ দিনে শেষ হলে ঈদের ছুটি থাকে চার দিন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চাই না কেউ ঢাকা থেকে বাইরে চলে যাক। তাই ছুটি সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে, যাতে সবাই ঢাকায় থেকে যায়। বুধবারও অফিস চলবে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে বলা হয়েছে, আপনাদের কর্মীদের ঢাকায় রেখে দেন।’

তিনি আরও বলেন, ঈদের ছুটিতে এভাবে গ্রামে ছুটে গেলে করোনাভাইরাস মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এ কারণেই ঈদের ছুটি সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। যদি ঈদ বৃহস্পতিবারও হয় তাহলে কোনো সমস্যা নেই।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, এবার ঈদের ছুটি তিন দিনের বেশি দেয়া হবে না। আর এ ছুটিতে কর্মস্থলও ত্যাগ করা যাবে না। এ সিদ্ধান্ত সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী ও শিল্প-কারখানার কর্মরতদের জন্য প্রযোজ্য।

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, করোনার কারণে এবার ছুটি তিনদিনই থাকছে। কেউ এর বাইরে ছুটি দিতে পারবে না, এ বিষয়ে সরকারি-বেসরকারি সবক্ষেত্রে নির্দেশনা দেয়া আছে।

কর্মস্থলে ঈদ করার বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামও। সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর প্রেস ব্রিফিংয়ে সচিব বলেন, ঈদের ছুটি তিনদিনই থাকছে।

গত ৫ মে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এক প্রজ্ঞাপন জারি করে বলা হয়, সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঈদের ছুটিতে আবশ্যিকভাবে স্ব স্ব কর্মস্থলে (অধিক্ষেত্রে) অবস্থান করবেন।

এদিকে কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় ১৬ মে পর্যন্ত বিধিনিষেধ অব্যাহত থাকবে।

সূত্রঃ সময় নিউজ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin