শ্রেণী কক্ষ অপরিষ্কার থাকায় অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

মহামারীর মধ্যে দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন একটি কক্ষ অপরিষ্কার থাকায় আজিমপুর গভার্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

রোববার সকালে এ স্কুলের পাঠদান কার্যক্রমের প্রস্তুতি দেখতে গিয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের জানান।

মন্ত্রীর সঙ্গে থাকা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক বলেন, “একটি কক্ষ অপরিষ্কার পেয়েছি। উনাকে আমরা প্রথমে শোকজ করব, কিছু করতে হলে তো আগে শোকজ করতে হয়।”

অধ্যক্ষ হাসিবুর রহমান বলেন, “মন্ত্রী মহোদয় যখন পরিদর্শনে আসেন, তখন তিনি আমদের কলেজের একটি স্টোর রুমে গিয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছেন। আমি তখন বলতে পারিনি যে এটা স্টোর রুম।

“আমার চাকরির আর মাত্র পনের দিনের মত আছে। এখন আমার কী করেন, তারাই বলতে পারবেন। ডিজি মহোদয় বলেছেন, প্রথমে শোকজ করবেন।”


মন্ত্রীর সঙ্গে থাকা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক বলেন, “একটি কক্ষ অপরিষ্কার পেয়েছি। উনাকে আমরা প্রথমে শোকজ করব, কিছু করতে হলে তো আগে শোকজ করতে হয়।”

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গতবছর মার্চে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সংক্রমণ কিছুটা কমায় রোববার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারা দেশে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল কলেজ খুলে দেওয়া হয়েছে।


তবে ঝুঁকি কমাতে এখনই সব শ্রেণির ক্লাস একসঙ্গে হচ্ছে না। শুরুতে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী, পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির প্রতিদিন এবং প্রথম থেকে চতুর্থ ও ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন ক্লাস নেওয়ার পরিকল্পনা সাজানো হয়েছে।

মহামারীর মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরাসরি ক্লাস নেওয়ার বিষয়েও জোর দিচ্ছে সরকার। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে সেজন্য ১৯ দফা নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

তাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রবেশ পথে নিয়মিত তাপমাত্রা মাপা, ভিড় এড়াতে প্রতিষ্ঠানের সব প্রবেশমুখ ব্যবহার করা, একটি প্রবেশমুখ থাকলে একাধিক প্রবেশমুখের ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।


করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গতবছর মার্চে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সংক্রমণ কিছুটা কমায় রোববার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারা দেশে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল কলেজ খুলে দেওয়া হয়েছে।
তবে ঝুঁকি কমাতে এখনই সব শ্রেণির ক্লাস একসঙ্গে হচ্ছে না। শুরুতে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী, পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির প্রতিদিন এবং প্রথম থেকে চতুর্থ ও ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন ক্লাস নেওয়ার পরিকল্পনা সাজানো হয়েছে।

মহামারীর মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরাসরি ক্লাস নেওয়ার বিষয়েও জোর দিচ্ছে সরকার। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে সেজন্য ১৯ দফা নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

তাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রবেশ পথে নিয়মিত তাপমাত্রা মাপা, ভিড় এড়াতে প্রতিষ্ঠানের সব প্রবেশমুখ ব্যবহার করা, একটি প্রবেশমুখ থাকলে একাধিক প্রবেশমুখের ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।

এছাড়া প্রতিষ্ঠানের একটি কক্ষ প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থাসহ আইসোলেশন কক্ষ হিসেবে প্রস্তুত রাখা, প্রতিষ্ঠানের সব কক্ষ, বারান্দা, সিঁড়ি, ছাদ, আঙিনা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, ওয়াশরুম নিয়মিত পরিষ্কার রাখা এবং পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা করার নির্দেশনা রয়েছে।
আজিমপুর গার্লসে পরিদর্শনে আসা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, পরিচ্ছন্নতার নিয়ম না মানায় অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে অধ্যক্ষের নেতৃত্বে গঠতি মনিটরিং কমিটির সদস্য শিক্ষকদেরও সাময়িক বরখাস্ত করা হবে। নিয়ম অনুযায়ী এরপর তাদের কারণ দর্শাতে বলা হবে।

সূত্রঃ বিডি নিউজ ২৪

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin