শরিফ হত্যার বিচার চাইতে যেয়ে উল্টো মিথ্যা অভিযোগের শিকার এলাকাবাসী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের চাঞ্চল্যকর শরীফ হত্যার বিচারের দাবিতে যারা সরব ছিলো, তাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে জামিনে মুক্তি পাওয়া প্রধান আসামী শাকিলের পরিবার।

অভিযোগে শাকিলের পরিবার উল্লেখ করে প্রায় সময় এলাকার কিছু লোকজন তাদের উপর হামলা, গালি গালাজ ও তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে। তাইতারা এলাকার নির্দিষ্ট কিছু মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে তারা হলেন সোহাগ,অনিক,শাওন,রাজিব,ইমরান,জাহাঙ্গীর,মহসিন, অজিফ,বাঁধন,জিহাদ আরো অজ্ঞাত অনেকের নাম । এই বিষয়ে অভিযুক্তরা বলেন, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ বানোয়াট, মিথ্যে ও ভিত্তিহীন ।তারা আরো বলেন , এই অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করতে গতকাল শনিবার ১০ এপ্রিল দুপুরে সরজমিনে তদন্তে আসেন ফতুল্লা থানার তদন্তকারি কর্মকর্তা এ্যাসিস্টেন সাব-ইন্সপেক্টর অব পুলিশ ওবায়দুল ইসলাম (পিকুল)

তিনি শরীফ হত্যা মামলার বাদী তার বাবা (আলাল মাদবর) ও মহল্লা বাসীর সাথে কথা বলেন, তিনি সরজমিনে অভিযোগকৃত কয়েক জনকে দেখতে পান, তাদেরকে শাকিলের পরিবারের সামনে মুখোমুখি করা হলে তারা অভিযোগটির কোনো সত্যতা প্রমাণ করতে পারেনি। উপস্থিত মামলার বাদী ও এলাকাবাসী শাকিল ও তার কিশোর গ্যাং এর অত্যাচার,মাদক ব্যবসা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে ভয়ংকর তথ্য জানালে তদন্তকারি কর্মকর্তা ঘটনার গভীরতা বুঝতে পারে এবং মহল্লা বাসীকে সতর্ক করে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

”নারায়াণগঞ্জ বুলেটিন”এর পক্ষ থেকে এই ঘটনার সত্যতা যাচাই করার জন্য উক্ত তদন্ত্য কর্মকর্তার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা একটি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি, বিষয়টি এখনো তদন্তাধীন তবে আমরা প্রাথমিক ভাবে তেমন কোন কিছুর সতত্য পাইনি ।

উল্লেখ্য যে, ২০২০ সালের , ১ এপ্রিল সকাল ১১টায় নিজ বাড়ির সামনেই কুপিয়ে হত্যা করা হয় শরীফ মাতবর নামে এক যুবককে। সে ওই এলাকায় আলাল মাতবরের ছেলে। বৃষ্টি ইলেকট্রনিক্স ও ফার্নিচার নামে একটি দোকান ছিল তার। এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin