রাতে ছাত্রলীগ নেতা ভিপি রিয়াদের বাসায় পুলিশের হানা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদের বাসায় হানা দিয়েছে পুলিশ। এসময় ছাত্রলীগ নেতা রিয়াদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি জব্দ করে নিয়ে যায় প্রশাসন।

এমন ঘটনা শুধু রিয়াদের সাথেই ঘটেনি, ছাত্রলীগের মহানগর সাধারন সম্পাদক হাসনাত রহমান বিন্দু, আহমেদ কাউসারের বাড়িতেও প্রশাসন যান।

তবে এ বিষয়ে পুলিশ সুপার ও ফতুল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে ফোন করলে তারা কিছুই জানেন না বলে গনমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন।

এদিকে এমন ঘটনায় পুরো এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। সরকারদলীয় সুখ্যাতী সম্পন্ন ছাত্র রাজনীতির নেতৃত্ব প্রদান করা ছাত্রলীগ নেতাদের বাড়িতে এমন পুলিশের হানায় আতঙ্কিত হয়ে পরেছে তাদের পরিবার ও এলাকাবাসী।

গতকাল শনিবার (৮ জানুয়ারি) রাত দশটায় মাসদাইর বেকারীর মোড় এলাকায় সদ্য বিলুপ্ত মহানগর ছাত্রলীগের কমিটির সভাপতি ও সরকারি তোলারাম কলেজের ভিপি হাবিবুর রহমান রিয়াদ (৩০) এর নিজ বাড়িতে ১০ থেকে ১৫ গাড়ি প্রশাসনের লোক অবস্থান নেয়।

এ সময় তারা রিয়াদকে খোঁজ করতে গেলে সামনে পড়েন রিয়াদের ভাইয়ের ছেলে সিয়াম (২২)। রিয়াদের বিষয়ে খোঁজ করলে সিয়াম বলেন তিনি (রিয়াদ) বাড়িতে নেই।

এ ঘটনায় হাবিবুর রহমান রিয়াদ তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আজকে দুপুরে ডাক্তার সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষে আয়োজিত এক সভায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির নেতারা এসেছিলেন। তাদেরকে নিয়ে ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষে প্রচারণার জন্য মতবিনিময় সভা চলাকালীন সময়ে জানতে পারলাম, ছাত্রলীগের কমিটি কেন্দ্র থেকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। তারপরেও আমরা সভা পরিচালনা করেছি।

কিন্তু আনুমানিক রাত ১০টার দিকে হঠাৎ করে আমার বাসায় ডিবি, পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনীর ১৫ গাড়ি প্রশাসনের লোকজন এসেছে। তারা এসে বলেছে ডাক্তার সেলিনা হায়াত আইভীর পক্ষে প্রচারণা করার জন্য এবং তারা প্রচারণা করার জন্য চাপ দিচ্ছে।

রিয়াদ বলেন, আমি ছাত্রলীগ করি, মহানগরের প্রেসিডেন্ট ছিলাম। যেহেতু ছাত্রলীগ করি সেহেতু স্বাভাবিকভাবেই আমি নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করব। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে মার্কা দিয়েছেন তার পক্ষে কাজ করব। আজকে সকালেও সভা করেছি, আগামীকাল ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের আসার কথা। একটি বড় আয়োজন এর চিন্তা ছিল। ১০ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে মেয়র আইভীর পক্ষে ভোট চাইতে প্রচারণা চালাবে। কিন্তু আজ অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে হঠাৎ কমিটি বিলুপ্ত করায়, বিষয়টি স্থবির হয়ে আছে। কিন্তু হঠাৎ করে প্রশাসনের এমন হানা দেওয়াতে আমার পরিবার সহ এলাকাবাসী আতঙ্কিত ও ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin