মেসি কাদলেন, কাদালেন বার্সা সমর্থকদের

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

মেসি স্পেনের জায়ান্ট ক্লাব বার্সালোনা ছাড়ছেন এটা পুরানো খবর। বার্সালোনা ছেড়ে পাড়ি জমাচ্ছেন ফরাসী জায়ান্ট ক্লাব পিএসজিতে। ফুটবলের এই জাদুকরের বিদায়ী অনুষ্ঠানে মেসি কেদেছেন, কাদিয়েছেন বিশ্বের কোটি বার্সা সমর্থকদের।

মেসির এই বিদায়ে সারা বিশ্বের ন্যায় এদেশের মানুষেরও অশ্রুক্ষরন হয়েছে। আর্জেন্টাইন এই ফুটবলারের বার্সা ছাড়ার ঘোষনায় নিজেদের বুকের কষ্টগুলো তুলে ধরেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। ফেসবুক,টুইটার আর ইন্সটাগ্রামে মেসির প্রতি ভালোবাসা জানিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন তার লাখ লাখ ভক্তরা। ফেসবুকের ওয়াল আজ যেন মেসি ময়। প্রিয় লিওর বিদায়ী অনুষ্ঠানের কান্না যেন প্রতিটি ভক্তের অবেগকে বহুগুনে বাড়িয়ে দিয়েছে। নিজেদের আবেগকে উজাড় করে ভক্তরা নিজেদের ওয়ালে লিখেছেন তাদের মনের কথা।

মাহমুদুল হাসান নামে এক বার্সা সমর্থক লিখেন, “হয়তবা কোন একদিন বার্সার প্রতিপক্ষ হয়ে নু-ক্যাম্পে ফিরে আসবেন। নু-ক্যাম্পের চিরচেনা সেই সবুজ গালিচা,খুব পরিচিত সেই করিডোর দেখে মুচকি হাসবেন কিন্ত পরক্ষনেই বুঝতে পারবেন গায়ে অন্য ক্লাবের জার্সি,বুকের বাম পাশে অন্য ক্লাবের লোগো। ক্যারিয়ার শেষে এই বার্সেলোনা ক্লাবে আবার ও ফিরে আসার প্রমিজ করেছেন। ক্লাবের জার্সি পরে খেলোয়াড় হিসেবে না হোক, স্পোর্টিং ডিরেক্টর অথবা আপনি যেই “লা মাসিয়া” প্রজেক্ট থেকে উঠে এসেছেন সেই প্রজেক্টের ডিরেক্টর দের একজন হয়ে আসবেন,সেই আশা রাখলাম। ততদিন পর্যন্ত অপেক্ষায় রইলাম।
আপাতত তাই আপনাকে বিদায় নয় ধন্যবাদ জানাই। ধন্যবাদ লিওনেল মেসি।”

রনিক শামসুজ্জামান নামে আরেক সমর্থক লিখেন,”
চোখের জলে ছিন্ন হলো বন্ধন।
সব বিদায় কাঙ্খিত নয়, সব বিদায় সুন্দর হয় না।
মেসি ভক্ত ও বার্সালোনা ভক্তদের জন্য এই বিদায় টা অনেক কষ্টের। তবে ফুটবলের এই বিস্ময় প্রতিভা যেখানেই থাকুক, ভাল থাকুক এবং সারাবিশ্বের ফুটবল প্রেমীদের মনে গেঁথে থাকুক, এই কামনা রইল।”

এভাবেই ভক্তদের চোখের জল আর ভালোবাসায় প্রিয় ক্লাব বার্সাকে ছেড়ে পিএসজির পথে পাড়ি জমাচ্ছেন ফুটবলের এই বিস্ময় বালক প্রিয় লিও। কোটি ভক্তের ভালোবাসায় আবারও বার্সার জার্সি গায়ে নূ-ক্যাম্প মাতাবে লিওনেল মেসি এই প্রত্যাশাই রইলো।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin