মিন্নির ফাঁসি কার্যকর হলে মিলাদ দেব: নয়ন বন্ডের মা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বহুল আলোচিত বরগুনার শাহনেওয়াজ রিফাত (রিফাত শরীফ) হত্যা মামলার রায়ে রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির ছয়জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। অপর চার আসামিকে অব্যাহতি দিয়েছেন। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

রিফাত হত্যা মামলার রায়ের পর মিন্নির ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নয়ন বন্ডের মা। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, আমি খুশি হয়েছি। এই রায় কার্যকর হলে আমি মিলাদ দেব। মিন্নির কারণে আমার ছেলের এমন পরিণতি হয়েছে। আমার ছেলে ভালো হয়ে গেছিল। মিন্নি রিফাতকে বিয়ে করার পর নয়ন ক্ষুব্ধ হয়। আমি মিন্নিকে কখনও ক্ষমা করবো না।’

সাহিদা বেগম আরও বলেন, ‘মিন্নির এমন বিচারে সবাই সচেতন হবে। যাতে করে নতুন করে মিন্নির মত কেউ জন্ম না নেয়। ওর কারণে কতগুলা পরিবার ধ্বংস হয়ে গেলো। আমার ছেলের পরিণতি হলো বিচার ছাড়া মৃত্যু। আমার ছেলে অন্যায় করলেও ন্যায়বিচারের দাবি রাখি আমরা। কিন্তু সে সুযোগ দেওয়া হয়নি, আমি আমার ছেলেকে নির্বিচারে হত্যার বিচার চাই।’

রায়ের পর প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন বন্দুকযুদ্ধে নিহত এই মামলার অন্যতম আসামি নয়ন বন্ডের মা সাহিদা বেগম।

গত ২ জুলাই ২০১৯ তারিখ ভোরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান আসামি ০০৭ বন্ড গ্রুপের প্রধান নয়ন বন্ড।

প্রসঙ্গত, বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেন আদালত। একই মামলায় চারজনকে খালাস দেয়া হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯) ও আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯) ।

এছাড়া এ মামলায় চার আসামিকে বেকসুর খালাসপ্রাপ্তরা হলেন, মো. মুসা (২২), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)।

সূত্রঃবিডি২৪ লাইভ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin