মাসদাইর ছোট কবরস্থান এলাকায় নববধু হত্যায় মামলা দায়ের

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

সদর উপজেলার মাসদাইর ছোট কবরস্থান এলাকায় নববধূ মারিয়া আক্তার হত্যার ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন নিহতের মা। ফতুল্লা মডেল থানায় দায়েরকৃত মামলায় নাম নিহতের স্বামী রিফাতসহ চারজন কে আসামী করা হয়েছে।

আজ শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর ) দায়েরকৃত মামলার আসামীরা হলো মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী থানার আউটশাহী গ্রামের লিটন শেখের পুত্র ও ফতুল্লা মডেল থানার মাসদাইর ছোট কবরস্থানের শাহাদাতের বাড়ীর চতূর্থ তলার ভাড়াটিয়া নিহত মারিয়া আক্তারের স্বামী রিফাত(২১),নিহতের দেবর আশরাফুল (১৮),নিহতের শ্বাশুড়ি আনেয়ারা বেগম(৫০) সহ নিহতের স্বামীর বোন জামাই সাহেদ বাবু(২৫)।

নিহত মারিয়া আক্তারের মা ও মামলার বাদী রহিমা বেগম জানান, প্রেম করে পালিয়ে বিয়ের পর থেকেই মারিয়ার স্বামী রিফাত তার মা, ভাই, বোন ও বোন জামাইয়ের সাথে মাসদাইর ছোট কবরস্থান সংলগ্ন শাহাদাতের পাঁচতলা বিল্ডিংয়ের চতূর্থ তলার ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছিলো। বিয়ের পর বাদী তার কয়েকজন স্বজনদের সাথে নিয়ে মেয়ে মারিয়া কে দেখতে আসলে এবং রিফাত সহ মেয়েকে নিজেদের বাসায় নিয়ে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার জন্য আসলে তাদের সকলের সাথে খুবই খারাপ আচরন করে রিফাত ও তাদের পরিবারের অপর সদস্যরা। গত বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক তিনটায় মারিয়া বাড়ীর ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করে বলে জানায় মারিয়ার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। খবর পেয়ে মারিয়ার পরিবারের লোকজন এসে দাবি করে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

অভিযোগ পেয়ে পুলিশ শুক্রবার বিকেল মামলার এজাহার নামীয় তিন আসামী নিহতের স্বামী রিফাত, শ্বাশুড়ি আনোয়ারা বেগম ও দেবর আশরাফুল কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের এজাহারনামীয় তিন আসামীর মধ্যে নিহতের স্বামী রিফাত ও দেবর আশরাফুল কে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে এবং শ্বাশুড়ি আনোয়ার বেগম কে হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ রকিবুজ্জামান জানান, গৃহবধু মারিয়ার মৃত্যুর বিষয়টি শুরুতেই হত্যাকান্ড বলে মনে হয়েছিলো। পুলিশ মোটামুটি নিশ্চিত হয়েই ঘটনার পরপর শহরের জেনারল( ভিক্টোরিয়া) হাসপাতাল ও মাসদাইরে অভিযান চালিয়ে নিহতের স্বামী,দেবরও শ্বাশুড়ি কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। নিহতের মা আজ(শনিবার) বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ্য করে মামলা দায়ের করেছে। তিনজন কে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে। এজাহারনামীয় অপর একজনকে গ্রেফতার অভিযান অব্যহাত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin