মাসদাইরে সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। ১৮ জানুয়ারী ( সোমবার ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর তালা ফ্যাক্টরিস্থ ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সম্মুখে এ আয়োজন করা হয়। নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ১৩নং ওয়ার্ড শাখার উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো.জহিরুল আহসান (হাসান)। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মো.শহীদ বাদল(ভিপি বাদল)। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে- মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো.রবিউল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো.এহসানুল হাসান নিপু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো.জুয়েল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মো.শহীদ বাদল বলেন, ডিএনডি বাঁধ রক্ষায় শামীম ওসমানসহ আমরা বস্তা কাঁধে ঝাঁপিয়ে পরি। সেসময় পানি সম্পদ মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী এসেছিলেন। প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা সেই দিন চাষাড়া প্ল্যাটফর্মে এসে ত্রাণ দিয়েছেন। আজকের এই সুবিধা বঞ্চিতদের নিয়ে কম্বল বিতরণ আয়োজন প্রমাণ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঘরে বসে থাকে না। সাধারণ মানুষের সাথে থাকে। মাসদাইর বাসীর কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করে বাংলাকে বিজয়ের পূর্ণতা দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের কারাগার থেকে প্রথমে লন্ডন, তারপর ভারতের মাটিতে এসেছিল। সেখানে শ্রীমতী ইন্দিরা গান্ধীকে বঙ্গবন্ধু বলেছিল, আমার বাংলার ১ কোটি মানুষকে আশ্রয় দিয়ে আপনে যে সাহায্য সহযোগীতা করেছেন আপনার কাছে চিরঋণী, কৃতজ্ঞ। আপনারা মাতৃতুল্য শেখ হাসিনার জন্য, প্রাণপ্রিয় নেতা শামীম ওসমানের জন্য দোয়া করবে

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো.এহসানুল হাসান নিপু বলেন, যার জন্ম না হলে স্বাধীনতা পেতাম না তিনি বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশের নেতৃত্ব দানকারী। ১৯৭১ সালে তার ডাকে যেভাবে মুক্তিযোদ্ধারা ঝাঁপিয়ে পরেছিল, সেই ডাকে সাড়া দেয়ায় আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। ঘাতক চক্র ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট বাংলাদেশকে নেতৃত্ব শূন্য করেছে এবং সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বন্ধ করতে চেয়েছে। তারা চেয়েছিল পাকিস্তান বানাতে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে নিম্ন থেকে মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্ত থেকে মধ্যম আয়ের দেশে এনেছে। বাংলাদেশকে সারা পৃথিবীর বুকে সচ্ছল রাষ্ট্র হিসেবে রূপান্তর করেছে।

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো.জুয়েল হোসেন বলেন, করোনাকালেও দেশে প্রধানমন্ত্রীর কারণে না খেয়ে নেই কেউ, বছরের প্রথমেই বই পাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। অতীতকে ভুলে গিয়েছি আমি ক্লাস ফাইভে পড়া অবস্থায় শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জকে কলঙ্কমুক্ত করেছে। শামীম ওসমান সরকারী তোলারাম কলেজকে, সরকারী তোলারাম বিশ্ববিদ্যালয় করেছে। শামীম ওসমান খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম করে, সারা বাংলাদেশেসহ পৃথিবীর মানচিত্রে আমাদের অবস্থান শক্তিশালী করেছে।

সভাপতির বক্তব্যে ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো.জহিরুল আহসান (হাসান) বলেন, ৯৬, ৯৫ সালে আমরা শামীম ওসমানের হাতকে শক্তিশালী করতে যখনই ডাক এসেছে আমরা গিয়েছি। সেই সময়ের একজন মহান নেতা মোক্তার হোসেন ভাই নেই আমাদের মাঝে। তাকে যেন আল্লাহ বেহশত নসিব করেন দোয়া করবেন। যেহেতু মোক্তার ভাই নেই, জেলা ও মহানগরের নেতৃবৃন্দের কাছে অনুরোধ আমরা আবার সুসংগঠিত হয়েছি কিন্তু আমাদের মধ্যে কিছু দুষ্ট লোক আছে। আবেদন মহানগর ও জেলার নেতৃবৃন্দের কাছে সৎ লোক মাত্র দুইজন, নিপু ও রবিউল ভাই। বাদল ভাইয়ের কাছে অনুরোধ, জননেতা শামীম ওসমানের কাছে জানাবেন আমাদের এই এলাকা যেন সুষ্ঠু ও শান্তভাবে থাকে। বাদল ভাই আমাদের এলাকায় নেতৃত্ব দিবেন, এটাই আমার আশা আকাঙ্খা।

বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ নারায়ণগঞ্জ জেলার সহ-সভাপতি সালাম খন্দাকার সেলিমের সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন- ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো.হাবিবুর রহমান হাবিব, ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো.খাজা ইরফান আলী, মাসদাই বাজার বাইতুল আমান জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক মো.খন্দকার আবুল খায়ের, এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ড সদস্য মো.আতাউর রহমান প্রধান, মাসদাইর সমাজ উন্নয়ন সংসদের সভাপতি শাহ্জাহান আহম্মদ প্রধানসহ আরও অনেকে।

সূত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin