মামুনুল ইস্যুতে জাপার ভূমিকায় ভিপি বাদল’র প্রশ্ন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

সোনারগাঁয়ে দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরিক দল জাতীয় পার্টি ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল। এ অবস্থায় জাতীয় পার্টিকে দেওয়া জেলার ২’টি আসনেই আগামী জাতীয় নির্বাচনে ছাড় দিতে চান না এই নেতা।

সোনারগাঁয়ের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কাঠামো নিয়ে মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) বিকালে বর্ধিত সভায় এ কথা বলেন তিনি।

তাঁর ভাষ্য, ‘সোনারগাঁয়ের মাটি নৌকার ঘাটি। সোনারগাঁয়ের মাটিতে নৌকা চাই, নৌকা।’

গত ৩ এপ্রিল রাতে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সচিব মামুনুল হক সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্ট নামের একটি হোটেলে এক নারীসহ অবরুদ্ধ হওয়ার পর ব্যাপক ভাঙচুর করেন তাঁর কর্মী-সমর্থকেরা। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ ও যুবলীগকে দায়ী করে রাতেই উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সোহাগ রনির ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘরে ব্যাপক ভাঙচুর চালান হেফাজতের কর্মী-সমর্থকেরা।

এ প্রসঙ্গে আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল বলেন, পার্টি অফিস ভাঙচুরের ঘটনার পর ৪ এপ্রিল আমি এখানে এসেছি। ৭ এপ্রিল মিটিংটা না হওয়ার জন্য অনেক বাঁধা আসছিল। আমার সাথে বার বার যোগাযোগ হচ্ছিল সোনারগাঁয়ের নেতাকর্মীরা সাথে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমরা মরবো, নয়তো বা প্রতিবাদ সভা করবো। সভা করেছিলাম।

তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের আন্দোলন, সংগ্রামে সোনারগাঁয়ের অনেক সাফল্য রয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র থেকে বার বার নারায়ণগঞ্জ-৩ ও ৫ আসন দেওয়া হয় মহাজোটের দল জাতীয়পার্টিকে। সেই জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের পার্টি অফিস ভাংচুরের ঘটনায় অপরিপক্কতার পরিচয় দিয়েছে। এখানে পরাজয় বরণ করা যাবে না। সোনারগাঁয়ে পারফেক্ট লিডার যদি এখানে পটাকশন না হয়, তাহলে যোদ্ধ ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের বিপরজয় ঘটবে। আর যদি নেতা তৈরি হয়, তাহলে সারা বাংলাদেশ লাগবে না, এক মিনিট কাঁচপুরে যদি আমরা দাড়িয়ে যাই। তাহলে কেউ আমাদের সাথে কুলিয়ে উঠতে পারবে না।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin