বন্দরে মানব কল্যাণ পরিষদের মাদক বিরোধী সমাবেশ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বাংলা সিমেন্ট মাঠ ,ইঞ্চি সিমেন্ট ফ্যাক্টরি , বেপারী পাড়া স্কুলের মাঠ রেললাইন ও মাহমুদ নগরের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ গলিতে আধুনিক কিশোর গ্যাং ও মেয়ে মাদকসেবীরা লাগামহীন অনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছেন। স্থায়ীগণ আতঙ্কের মধ্যে অতিষ্ঠ জীবনযাপন করছে।

কিছু স্থায়ী জনগন জানায় আপনাদের মাধ্যমে সরকারি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সচেতন মহলের দৃষ্টি পান কাম্য করছি। আমাদের এই মাহমুদ নগর মাদকসেবীদের নিরাপদ অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। সম্পূর্ণ ফ্রি-স্টাইলে বহিরাগত যুবক যুবতীরা মাদকের খুঁজে ভীড় জমাচ্ছে এই মাহমুদ নগর তিন রাস্তার মোড়ে ও পরিত্যক্ত সেরাজুট মেল এর আশেপাশে। অত্র এলাকার নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে আছে বহিরাগত মাদকসেবীদের আনাগোনায়। প্রতিদিন বিকাল থেকে রাত ২- ৩টা পর্যন্ত স্থায়ী কিছু প্রভাবশালী সেটেল দাতাগণ দের আশ্রয় জমজমাট মাদক ব্যবসার জমে উঠেছে । এতে সরজমিনে দেখা যায় মাহমুদ নগর মাদকসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ড যেমন চুরি,ছিনতাই ,চোরাই মাল ক্রয় ও যৌনকর্মীদের দিয়ে চালিয়ে আসছে এই কিশোর গ্যাং ।

বিভিন্ন লেবাস হিজাব পরিহিত যুবতীরা ও হিজরা গ্রপ চষে বেড়াচ্ছে এই এলাকাটাকে, বিকাল হলেই ভদ্র পোষাকধারী এইসব মাদক ব্যবসায়ীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। বর্তমানে আমাদের এই এলাকা টি মাদক সেবন ও সরবরাহের নিরাপদ স্থানে পরিণত হয়েছে। বন্দর থানা ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর অন্তর্ভুক্ত ২০ নং ওয়ার্ডের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে অভয়ারণ্য ও বাণিজ্যিক শিল্প এলাকায় পরিচয় মাহমুদ নগর আমাদের বর্তমানের একমাত্র বিনোদন প্রত্যাশিত এলাকাটি কিছু কোটিপতি বিত্তশীল, প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গ ও রাজনৈতিক জনপ্রতিনিধিদের ছত্রছায়ায় বেড়ে উঠা মাদক ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন রকম মাদক দ্রব্য সেবন ও সরবরাহ করে চলেছে। এতে নারায়ণগঞ্জের ,বন্দর থানার সুন্দর পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে জীবনমান।

মাদক সেবনের জন্য একমাত্র বিনোদনের সম্বল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে মাহমুদ নগরের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ স্থানকে ।

মানব কল্যাণ পরিষদ আয়োজিত মাদকবিরোধী একটি সমাবেশে মাহমুদ নগর এর বাশিন্দা মানবাধিকার কর্মী মোঃ রাসেল ইসলাম বলেন আপনার সন্তান ও নতুন প্রজন্মকে বিপথগামী ও ধ্বংসাত্মক মরণ থাবা থেকে সুরক্ষা দিতে মাদক ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডের মূলহুতা গডফাদারদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান।তাহলে ভাল থাকবে দেশ ও দেশের মানুষ । আমরা সকলেই জানি যে সুস্থ বিনোদনের একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে খেলাধুলা ও শরীর চর্চা। আর আমাদের এই আধুনিক মাহমুদ নগর যেখানে মুক্ত আকাশের নিচে আমরা দীর্ঘশ্বাস নিতে ছুটে যেতে চাই। কিন্তু বহিরাগত নির্লজ্জ ও বেহায়াপনা মাদকসেবীদের অসভ্যপনার কারনে পুরো এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে। ফ্রি স্টাইলে এমন নির্লজ্জ ও বেহায়াপনা পরিবেশ সৃষ্টি করে চলেছেন মাদক সেবনকারী ও ব্যবসায়ীরা । এতে উঠতি বয়সের স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী ও শিশুকিশোররা অনুপ্রাণিত হয়ে, বিপথগামী হছে এই মাদকের ভয়াল থাবায় এমন পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে দিনেদিনে এই মাদক আমাদের কোমলমতি শিশুকিশোর ও ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে একটি সহজ, স্বাভাবিক ও সমঝোতা বিষয়ে পরিণত হবে। তারা এই নোংরা পরিবেশে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন, এই পরিবেশে বেড়ে উঠবেন। যা কোমলমতি শিশুকিশোর ও ছাত্রছাত্রীদের জন্য কখনো মঙ্গলময় উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ হতে পারেনা। এতে আমাদের প্রত্যেক অভিভাবকগণ কে সোচ্চার ও সচেতন হওয়া জরুরী। মাহমুদ নগর একটি সম্প্রীতি ও আন্তরিকতা সম্পন্ন মফস্বল গ্রাম । এই ছোট্ট গ্রাম আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে একে অন্যের ভ্রাতৃত্ব ও আত্মীয়তার বন্ধন। তাই এই গ্রামকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন, কলুষতামুক্ত ও পরিবেশ দূষণ থেকে রক্ষা করা আমাদের সকলেরই নৈতিক দায়িত্ব। যে বা যাহারা এমন অনৈতিক অপকর্মের দ্বারা মাহমুদ নগর ও বেপারী পাড়া মহল্লার পরিবেশ দূষণ করে চলেছেন তাদের পরিচয় ও নাম ঠিকানা সনাক্ত করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ব্যবস্থার পদক্ষেপ গ্রহন করার আহবান জানাই। এতে শাস্তিমূলক দৃষ্টান্ত স্থাপন হলে অদূর ভবিষ্যতে আমাদের মাহমুদ নগর সুন্দর পরিবেশ বিঘ্নিত বা কলুষিত করার দুঃসাহস কেউ দেখাবে না বলে আমি আশাবাদী।

ইতিমধ্যে এই ব্যাপারে প্রশাসন সহ বিভিন্ন সচেতন মহলে অবহিতকরণ ও সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য আহবান জানানো হয়েছে। অচিরেই জনাব- জেলা প্রশাসক কে বিহিত পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমাদের গ্রাম মাহমুদ নগর সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে স্মারক প্রদান করা হবে। এতে মিডিয়াসহ আমাদের সকল শ্রেণী ও পেশার ব্যক্তিবর্গ, অভিভাবক ও যুব সমাজকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা খুবই জরুরী বলে আমি মুুুুনে করি। নিজ নিজ পরিবারে শিশুকিশোর ও সন্তানদের প্রতি সজাগ ও সচেতন দৃষ্টি রাখতে হবে। তাদের সহচর বা সহপাঠী সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে হবে। সহপাঠী যৌনকর্মী কিংবা মাদকসেবী কিনা তা খুবই গুরুত্ব সহ-কারে খতিয়ে দেখতে হবে। ইহা আমাদের সন্তানদের ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা ও উজ্জল ভবিষ্যতের জন্য খুবই গুরুত্ববহন করবে। মনে রাখতে হবে- একটি সমাজ ও সভ্যতাকে বদলে দিতে সেখানকার পরিবেশই যথেষ্ট। তাই আমরা কলুষতা ও দূষণমুক্ত সুষ্ট সুন্দর পরিবেশ ও শহর বিনির্মানে বদ্ধপরিকর। এতে উর্ধ্বতন সকলের সহযোগিতা ও আন্তরিক সুদৃষ্টি কামনা করি। সেইসাথে আমি ধন্যবাদ জানাই মানব কল্যাণ পরিষদ কে যে তাদের কার্যবিধি খুবই প্রশংসনীয।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin