মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় স্কুল ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

সোনারগাঁওয়ে মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় তৌহিদ হোসেন (১৩) নামে সপ্তম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার রাতে তারাবি নামাজ পড়ে বাসায় ফিরার পথে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য মো. নিলু মিয়ার ভাড়াটিয়া আব্দুল মান্নানের ছেলে মো. শান্ত (১৫) ও অপর ভাড়াটিয়া মহানন্দের ছেলে প্রীতম দাশসহ (১৪) অজ্ঞাত ৪/৫ জন মিলে অতর্কিত হামলা চালিয়ে হলায় ছুরিকাঘাত করে।

এ সময় ওই স্কুল ছাত্রের আর্তচিৎকারে অন্য মুসল্লিরা এগিয়ে আসলে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

হামলার শিকার স্কুলছাত্র তৌহিদের মামা সাংবাদিক হাজী মো. শফিকুল ইসলাম বৃহস্পতিবার রাতেই সোনারগাঁও থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়নি।

এ ব্যপারে অভিযোগটি তদন্ত কর্মকর্তা সোনারগাঁও থানার এসআই মো. ফারুক বলেন, বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়নি, তাই যাইনি। সময় পেলে এক সময় গিয়ে খোঁজ-খবর নেব।

এদিকে, থানায় অভিযোগ করার পর থেকে চৌরাস্তা এলাকার এক প্রভাবশালী নেতা মামলা তুলে থানা থেকে কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ তুলে নেওয়া জন্য ওই স্কুল ছাত্রের পরিবারকে চাপ দিয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয়রা জানান, দেশী অস্ত্রসহ এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের অত্যাচার দিন দিন বাড়ছে। এলাকার এক ক্ষমতাসীন নেতা কিশোর গ্যাং তৈরি করে মাদক ব্যবসা চালাচ্ছে।

তৌহিদের ঘটনায় এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। ভয়ে তৌহিদ ও তার পরিবার এলাকা ছেড়েছেন। দ্রুত তাদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানান ওসি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতেই বিষয়টি তদন্তের জন্য এসআই মো. ফারুককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin