ভয়ে আফগানিস্তানে দূতাবাস বন্ধ ঘোষণা অস্ট্রেলিয়ার

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

চলতি সপ্তাহে আফগানিস্তানে নিজেদের দূতাবাস বন্ধ করার কথা জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের পর নিরাপত্তা পরিবেশের ক্রমাগত অনিশ্চিয়তার অভিযোগ করে মঙ্গলবার (২৫ মে) এমন ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, অস্থায়ী পদক্ষেপ হিসেবে ২৮ মে দূতাবাস বন্ধ করে দেওয়া হবে। আফগানিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক সেনাদের প্রত্যাহারের পর এমন সিদ্ধান্ত এসেছে।-খবর এনডিটিভির
ক্যানবেরা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দূতাবাস বন্ধ করা হলেও অস্ট্রেলীয় কূটনীতিকরা নিয়মিত আফগানিস্তান পরিদর্শনে যাবেন। কিন্তু তাদের ঠিকানা ওই অঞ্চলের অন্য কোনো দেশে হবে। তবে কোথায় হবে তা নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি।

স্কট মরিসন বলেন, পরিস্থিতি অনুকূল হলেই কাবুলে আমাদের স্থায়ী উপস্থিতি আবার শুরু হবে।
বিবৃতিতে বলা হয়, দূতাবাস বন্ধ করলেও আফগানিস্তানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিষয়ে অস্ট্রেলিয়া প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। অন্যান্য রাষ্ট্রের সঙ্গে একযোগে আফগানিস্তানের স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের প্রতি সমর্থন জানিয়ে যাবে।
বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনী প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে পুরো মাত্রায় যুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে, এমন আশঙ্কা বিরাজ করছে।
এর আগে গত এপ্রিলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা আফগানিস্তান ছাড়বে।
দেশটিতে ন্যাটোর ৯ হাজার ৬০০ সেনা আছে, এদের মধ্যে অন্তত আড়াই হাজার মার্কিন বাহিনীর সদস্য।
গত দুই বছর ধরে আফগানিস্তানে মোতায়েন সেনার সংখ্যা ক্রমাগত কমিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। একসময় দেশটিতে অস্ট্রেলিয়ার দেড় হাজারের বেশি সেনা ছিল, সেখানে এখন মাত্র ৮০ জনের মতো আছেন।

সূত্র: সময় নিউজ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin