বাস-লঞ্চ ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত জনস্বার্থ বিরোধী -খেলাফত মজলিস

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধির পর নতুন করে বাস ও লঞ্চ ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে জনস্বার্থ বিরোধী আখ্যায়িত করে অবিলম্বে জ্বালানী তেলের বর্ধিত মূল্য এবং বর্ধিত বাস-লঞ্চ ভাড়া প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছে খেলাফত মজলিস।

আজ সোমবার (৮ নভেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে পরিবহন ধর্মঘটের নামে যাত্রীদের জিম্মি করে অন্যায়ভাবে বাস ভাড়া বৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনগণের যখন ত্রাহি অবস্থা এ সময় জ্বালানী তেল-গ্যাস এবং বাস-লঞ্চ ভাড়া বৃদ্ধি করে জনগণের উপর জুলুম করা হয়েছে।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আরও বলেন, গতকাল পরিবহন মালিকদের সাথে বৈঠকে সরকার নতুন করে বাস ভাড়া ২৭% ও লঞ্চ ভাড়া ৩৫% বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়। এতে সারাদেশে দূরপাল্লার বাস ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৪২ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১ টাকা ৮০ পয়সা হয়েছে এবং মহানগরীতে বিভিন্ন রুটের বাসভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৭০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ২ টাকা ১৫ পয়সা করা হয়েছে। এক লাফে ২৭% ও ৩৫% ভাড়া বৃদ্ধি কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এতে প্রান্তিক জনগণকেই বেশি ভোগান্তির শিকার হতে হবে।

বিবৃতিতে দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়, সরকার এমন এক সময়ে জ্বালানী তেল ও বাসভাড়া বৃদ্ধির ঘোষণা দিলো যখন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে জ্বলছে আগুন। ভুল সময়ে সরকারের এই উচ্চাবিলাসী সিদ্ধান্ত সকলকেই দগ্ধ করবে।

খেলাফত মজলিসের নেতৃদ্বয় অবিলম্বে ডিজেল ও কেরোসিনের বর্ধিত মূল্য এবং বর্ধিত বাস ও লঞ্চ ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি জানান।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin