বাংলার জমিনে পরা প্রতিটি রক্তের ফোঁটার বিনিময়ে এক একটি হেফাজতের কর্মী তৈরি হবে : আব্দুল আউয়াল

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

‘বাংলার জমিনে যে রক্তের ফোঁটা ফেলেছে, প্রতিটি রক্তের ফোঁটার বিনিময়ে এক একটি হেফাজতের কর্মী তৈরি হবে। বাংলার জমিনে আমরা দ্বীনকে কায়েম করবো ইনশাআল্লাহ’।

পূর্বঘোষণা অনুসারে শুক্রবার (২ এপ্রিল) জুমার নামাজের পর ডিআইটি মসজিদের সামনে সমাবেশ থেকে এ কথা বলেন হেফাজতে ইসলাম নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুল আউয়াল।

সমাবেশে হেফাজতের জেলা ও মহানগরের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। এতে সভাপতিত্ব করেন মাওলানা আব্দুল আউয়াল নিজেই।

মাওলানা আব্দুল আউয়াল তার বক্তব্যে বলেন, হেফাজতের আন্দোলনে যারা মারা গেছে বা আহত হয়েছে। তারা শাহাদাত বরণ করেছেন। তাই সরকারের প্রতি অনুরোধ করবো, আহত ও নিহতদের সরকারের পক্ষ থেকে সর্ব উন্নত ক্ষতিপূরণ দিয়ে দেশের জনগণের অন্তরকে শান্তি করবেন। তাদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের উপরে আপনারা নজর দিবেন।

তিনি আরও বলেন, হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের কেউই কোন জ্বালাও-পোড়াও-ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িত নন। প্রয়োজনে আপনারা ভিডিও ফুটেজ দেখে নিন, আকারণে আমাদের ওপর দোষ চাপাবেন না। হেফাজতের কর্মীদের অন্যায় ভাবে আপনারা হয়রানী করবেন না। যদি করেন, আমার আল্লাহ আপনাদেরকে ছেড়ে দিবে না। আগামী দিনে আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে যাবো। হেফাজতের আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকতে সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

এ সময় মোনাজাত থেকে বলা হয়, আল্লাহ প্রশাসনিক ভাইকে হেদায়েত দান করো, তাদের হেফাজত ইসলামের পক্ষে কাজ করার তৈফিক দাও, সাংবাদিক ভাইদের কলমকে হেফাজত ইসলামের পক্ষে লেখার মতো তৈফিক দাও।

নারায়ণগঞ্জ মহনগর হেফাজতে ইসলামের আমির মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন হেফাজতে ইসলামের জেলা সহ-সভাপতি আতিকুর ইসলাম নান্নু মুন্সী, মহানগর হেফাজত ইসলামের সাধারণ সম্পাদক মুফতি হারুন অর রশিদসহ আরও অনেকে।

এদিকে হেফাজতের কর্মসূচিকে ঘিরে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ডিআইটি এলাকায় নেয়া হয়েছিল ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। জুমার নামাজের আগে থেকেই ডিআইটি এলাকায় নারায়ণগঞ্জ পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে জোরদার নিরাপত্তা দেখা যায়।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin