বাংলাদেশিদের ইসরায়েল ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা বহালই থাকছে

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

পাসপোর্ট থেকে ‘এক্সেপ্ট ইসরায়েল’ ‍উঠিয়ে দেওয়া হলেও দেশটির বিষয়ে বাংলাদেশের নীতিগত অবস্থান আগের মতই থাকছে বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। রোববার (২৩ মে) এক বিবৃতিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের জন্য ইসরায়েলে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিষয়েও কোনো পরিবর্তন আসেনি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশে ইসরায়েলের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে মর্মে ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‍টুইট পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নজরে এসেছে। নতুন ইস্যু হওয়া ই-পাসপোর্ট থেকে ‘অল কান্ট্রিজ এক্সেপ্ট ইসরায়েল’ পর্যবেক্ষণ তুলে দেওয়ার পর এই দ্বিধা-দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, এই পর্যবেক্ষণ তুলে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশের ই-পাসপোর্টের আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখার জন্য। তার মানে এই নয়, মধ্যপ্রাচ্যের বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি পরিবর্তন হয়ে গেছে। বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের ইসরায়েলে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা অপরিবর্তিতই থাকছে। ইসরায়েল সম্পর্কে অবস্থান থেকে বাংলাদেশ সরকার সরে আসেনি এবং বাংলাদেশ এক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের অবস্থানেই অবিচলই রয়েছে।

সরকার বলেছে, আল-আকসা মসজদি কম্পাউন্ড ও গাজায় বেসামরিক লোকজনের উপর দখলদার ইসলায়েলি বাহিনীর সাম্প্রতিক বলপ্রয়োগের নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। জাতিসংঘের প্রস্তাবের আলোকে দুই রাষ্ট্র সমাধানকে স্বীকৃতি জানানোর মৌলিক অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ। যেখানে ১৯৬৭ সালের যুদ্ধ-পূর্ববর্তী সীমানা ঠিক রেখে দুই রাষ্ট্র তৈরি এবং পূর্ব জেরুজালমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী করার বিষয়টি রয়েছে।

প্রসঙ্গত, স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশের ইস্যুকৃত পাসপোর্টের প্রথম পৃষ্ঠায় লেখা ছিল ‘দিস পাসপোর্ট ইজ ভ্যালিড ফর অল কান্ট্রিজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড এক্সসেপ্ট ইসরাইল’ (বিশ্বের যেকোনো দেশের জন্য এই পাসপোর্ট কার্যকর থাকবে, শুধু ইসরাইল ছাড়া)। অর্থাৎ বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী কোনো ব্যক্তি শুধু ইসরাইল ব্যতিরেকে বিশ্বের যেকোনো দেশ ভ্রমণ করতে পারবেন।

সূত্রঃ সময় নিউজ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin