বন্দরে ছাগল ডাকাতির সময় গ্রেফতার ৩

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে কাক ডাকা ভোরে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ এলাকায় দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ২৭ জানুয়ারী চালককে অস্ত্র ঠেকিয়ে যাত্রীবাহী বাসের বক্স থেকে ছাগল নামিয়ে নেয়ার সময়ে ৩ দুর্ধষ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে কাঁচপুর হাইওয়ে থানা পুলিশ।

কামতাল তদন্ত কেন্দ্রে পুলিশের সহযোগীতায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ২৭টি ছাগল উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতরা হলো, মো. সুমন(২৬), মো. আলম(২৪) ও মো. রাসেল(২৪)।

ধৃত ডাকাত মো, সুমন, রূপগঞ্জ উপজেলার সাং ভাউলিয়া পাড়া গ্রামের মো. আবু সাঈদের ছেলে, মো. আলম, মাাদারিপুর শিবচর থানার কাঠাল চর গ্রামের নুরুল হকের, বর্তমান হীরাজিল আতাহার আলীর ভাাড়াটিয়া, মো. রাসেল, কুমিল্লা দাউদকান্দি থানার দৌলতপুর গ্রামের মো. আব্দুস ছাত্তারের ছেলে।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো. মনিরুজ্জামান জানান, টিএম পরিবহন (ঢাকা মেট্রো ব ১৫-৭৪৭৬) একটি যাত্রীবাহী বাস বক্সে করে ২৭টি ছাগল নিয়ে রংপুর থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। বুধবার ভোর সাড়ে ৫ টার দিকে যাত্রীবাহী বাসটি ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর বাসষ্ট্যান্ড পৌঁছালে ১ জন মহিলা ও ৪ জন পূরুষ যাত্রী চট্টগ্রাম যাওয়ার কথা বলে বাসে উঠেন। বাসটি নারায়নগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলার লাঙ্গলবন্দ নামক স্থানে পৌঁছালে চালক ও সুপারভাইজারকে পিস্তল ঠেকিয়ে ভয় দেখিয়ে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল বাসের বক্সে থাকা ২৭ টি ছাগল নামাতে থাকে।


এ সময় কাঁচপুর হাইওয়ে থানার গল্ফ-০৭ টহল ডিউটি পুলিশের উপস্থিতি দেখে ডাকাতদল ১০ টি ছাগল নিয়ে দ্রুত গ্রামের দিকে পালাতে থাকে। এরপর এএসআই রুবেল শেখ ডাকাতদের ধাওয়া করে ০৭ টি ছাগল উদ্ধার করে। ডাকাতদল বাকি ৩ টি ছাগল নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। ওই মুহুর্তে বন্দর থানাধিন কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের টহল ডিউটি পুলিশকে অবগত করলে এসআই আবুল কাশেম ডাকাতদের ধাওয়া করে হালুয়াপাড়া গ্রামের ভেতর থেকে ০৩ জন ডাকাত আটক করে এবং বাকি ২টি ছাগল উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় বন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin