বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে আমার শৈশব, যৌবন আর স্বপ্নকে হত্যা করা হয়েছেঃ শামীম ওসমান

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট খুনিরা শুধু বঙ্গবন্ধু কিংবা তার পরিবারকে হত্যা করেনি। তারা একই সাথে সাথে হত্যা করেছে শামীম ওসমানের শৈশব, যৌবন আর স্বপ্নকে। গত ২৭শে আগস্ট বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভি কর্তৃক আয়োজিত “দূর্নীতি রুখবে কে?” শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে হত্যার মধ্য দিয়েই এদেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির শুরু হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এদেশে দূর্নীতির সূত্রপাত ঘটে। মানুষের যখন মানসিকতার অবক্ষয় ঘটে তখন থেকেই দূর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন।এ সাংসদ আরো বলেন ‘৭৫ পরবর্তী যত সরকার এদেশের রাষ্টীয় ক্ষমতায় এসেছে তারা এ দেশ শাসনের নামে শুধু সম্পদ লুণ্ঠন করেছে। বঙ্গবন্ধু বেচে থাকলে বর্তমানে দেশের অর্থনীতি জাপানের মত থাকতো বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এ সাংসদ।

তিনি আরো বলেন জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বাধাগ্রস্ত করার জন্য সংসদে “ইনডেমেন্টি আ্যাক্ট” বিল পাশ করেন। তিনিই বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রাষ্টীয় গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করে পুরষ্কৃত করেন বলে জানান এ সাংসদ। ২১ শে আগস্টের বোমা হামলা, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ অফিসের বোমা হামলায় বি.এন.পির যোগশাযশ আছে বলে মনে করেন তিনি। আর এজন্য তিনি বি.এন.পিকে রাজনৈতিক দল না বলে সন্ত্রাসী দল বলা উচিত বলে মনে করেন।

বিশিষ্ট সাংবাদিক ড. রুবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চালনায় গোলটেবিল বৈঠকে আরো অংশ নেন সরকার দলীয় সাংসদ অধ্যাপক ডা. হাবীবে মিল্লাত মুন্না, বি.এন.পির সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, একই দলের সাবেক সাংসদ আব্দুল ওয়াদুদ ভুইয়া, জাতীয় পার্টির সাংসদ ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin