‘বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারের হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হয়েছে’:সুজিত রায় নন্দী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সমাজকল্যান এবং ত্রান বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারের হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজকে মুক্তিযুদ্ধেরর চেতনায় ঘুরে দাড়িয়েছি আমরা।তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুর মতো ব্যাক্তি এদেশে জন্ম নিয়েছিল বলেই আমরা বাংলাদেশ কে স্বাধীন করতে পেরেছি।’

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে নারায়নগঞ্জে বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে চারদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কারনেই আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক এবং একটি জাতীয় পতাকা ও জাতীয় সংগীত পেয়েছি। তিনি বলেন বঙ্গবন্ধু এমন একজন ব্যাক্তি এবং নেতা ছিলেন তাকে যদি হত্যা করা না হতো তিনি সারা বিশ্বের নেতৃত্ব দিতে পারতেন। সুজিত নন্দী বলেন আজকের প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর চেতনাকে ধারন করতে হবে। এজন্য বঙ্গবন্ধুর লেখা বইগুলো পড়তে হবে। বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী বইটি পড়লে আমরা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারবো।

বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলের পরিচালনা পরিসদেও সভাপতি ও দৈনিক সংবাদের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) তোফাজ্জল হোসেন। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যানিকেতন ট্রাষ্টের সিনিয়র ভাইস পেসিডেন্ট ও জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুস সালাম, ট্রাষ্টিসদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহেল, আরাফাদুর রহমান বান্টি,রতন সাহা, ফয়সল আজিজ তুষার, নবনীত সাহা এবং প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার সাহা।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই বিদ্যানিকেতনের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সংগীত,নৃত্য এবং আবৃত্তি পরিবেশন করেন। পওে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপরক্ষে নারায়নগঞ্জের সকল স্কুলের মধ্যে আয়োজিত রচনা এবং চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করা হয়।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin