ফিটনেস পরীক্ষায় সর্বোচ্চ স্কোর সাকিবের

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

দুদিন আগে ফিটনেস পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল সাকিব আল হাসানের। নির্ধারিত সময়ের দুই ঘণ্টা আগেই চলে এসেছিলেন মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। অনেকটা সময় কাটালেও সেদিন ফিটনেস যাচাইয়ের জন্য বিপ টেস্টে অংশ নেননি তিনি। পরে জানা যায়, আলাদাভাবে বিপ টেস্ট দেবেন সাকিব। আর সেখানেও বাজিমাত করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের সেরা তারকা। ফিটনেস পরীক্ষায় সর্বোচ্চ স্কোর করেছেন তিনি।

বুধবার বিপ টেস্টে সাকিবের স্কোর এসেছে ১৩.৭। আগের সর্বোচ্চ ছিল বাঁহাতি পেসার মেহেদী হাসান রানার। তিনি পেয়েছিলেন ১৩.৬। দারুণ ফল এসেছিল নিহাদুজ্জামানেরও। ২১ বছরের এই স্পিন অলরাউন্ডারের স্কোর ছিল ১৩.৪।

ট্রেনার তুষার কান্তি হাওলাদার জানিয়েছেন, ‘সাকিব আজ একা অংশ নিয়েছে। তার স্কোর ১৩ এর চেয়ে বেশি এসেছে। আমি একদম সঠিকটা বলতে পারছি না। তবে অন্যতম সেরা।’

তবে বিশ্বস্ত সূত্রের বরাতে জানা গেছে, সাকিব ১৩.৭ স্কোর করেছেন। যা গত কয়েক দিনের বিপ টেস্টে অংশ নেওয়া ক্রিকেটারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। গত শুক্রবার ভোররাতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফেরার পর অবশ্য ফিটনেস প্রসঙ্গে কিছুটা উদ্বেগ জানিয়েছিলেন তিনি, ‘যে অবস্থায় ছিলাম, অবশ্যই সে অবস্থায় নেই। তারপরও মাঝখানে (গত সেপ্টেম্বরে, বিকেএসপিতে) যখন অনুশীলন করছিলাম, ভালো একটা অবস্থানে চলে এসেছিলাম। এক মাসের এই বিরতি না গেলে হয়তো ভালো অবস্থায় থাকতাম। বিরতির কারণে স্বাভাবিকভাবেই বেশ খানিকটা পিছিয়ে গেছি। সময় তাই লাগবে। এই টুর্নামেন্ট শেষ হতে হতে আশা করি আমার পুরো ফিটনেস ফিরে পাব।’

যারা বিপ টেস্টে উত্তীর্ণ হতে পারেনি, তাদের নতুন করে অংশ নেওয়ার সুযোগ নেই। কারণ, আগামীকাল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের প্লেয়ার্স ড্রাফট। বিসিবি আগেই জানিয়েছিল, বিপ টেস্টে ন্যূনতম ১১ স্কোর করতে পারলে তবেই জায়গা মিলবে প্লেয়ার্স ড্রাফটে।

সূত্রঃ দ্যা ডেইলি স্টার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin