ফতুল্লা থানায় রাসেল,ফেরদৌস- হৃদয় গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে মামলা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ক্রমেই বেপরোয়া হয়ে ওঠা দক্ষিন মাসদাইরের ফেরদৌস- হৃদয়- রাসেল গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে ফতুল্লা থানায়। মারধর,ছিনতাই ও প্রাননাশের হুমকির অভিযোগ এনে এই মামলা দায়ের করেছেন দক্ষিন মাসদাইরের এক হোটেল ব্যবসায়ী।

মামলায় উল্লেখ করা হয় গত ৭ই মার্চ (রবিবার) রাতে সোহাগ,শামীম,আরাফাত, ফেরদৌস, হৃদয় সহ কয়েকজন সন্ত্রাসী নাহিদ নামের ব্যবসায়ীর দোকানে এসে গালিগালাজ করতে থাকে।

তাদেরকে গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে নাহিদের ওপর হামলা চালায়। এসময় আসামীরা লোহার রড দিয়ে নাহিদকে এলোপাথাড়ি মারতে থাকে।

নাহিদকে বাচাতে দোকানের কর্মচারীরা এগিয়ে আসলে আসামীরা ছুড়ি দিয়ে তাদেরকে জখম করে।আসামীরা দোকান ভাঙ্গচুর করে এবং দোকানের ক্যাশে থাকা ৬৫০০০ টাকা ছিন তাই করে নিয়ে যায়। আহত করার পাশাপাশি তারা যাবার সময় নাহিদকে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে এবং কোন আইনি পদক্ষেপ নিলে মাদক মামলায় ফাসিয়ে দেবার হুমকি দেয়।

এই বিষয়ে এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান ”নারায়াণগঞ্জ বুলেটিনকে” বলেন, আমার ইউনিয়নে ৭ নং ওয়ার্ডটি ছিলো সবচেয়ে শান্তিপূর্ন এলাকা, কিন্তু বেশ কিছুদিন যাবত একটি কিশোর গ্যাং এর নাম শোনা যাচ্ছে যারা অসহায় দিন মজুর ,গার্মেন্টস কর্মীদের থেকে টাকাসহ নানা কিছু ছিনতাই ও হয়রানির মাধ্যেমে টাকা আদায় করেন ।

কেউ বাধা দিলে তাদের উপর হামলা করে। আইন ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে এটার বিরুদ্ধে সামাজিক ও আইনিভাবে এদের প্রতিহত করা হবে ।

এ ব্যাপারে এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার মীর জাকারিয়া জাকির বলেন , ”এই গ্যাং বাহিনীদের কোন ছাড় দেওয়া হবে না। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে ,আইনিভাবে এদের কঠোরভাবে দমন করতে হবে”।

এই ব্যাপারে এলাকাবাসি জানায় , এদের ভয়ে কেউ মুখ খোলেনা । তাদের অসামাজিক কাজে বাধা দিলে জীবননাশের হুমকি দেয় ।এই গ্যাং এর হাত থেকে তারা নিস্তার চায় ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin