প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ওসির মেয়েকে মারধর

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে তার সহপাঠীর বিরুদ্ধে। লেলিয়ে দেয়া এক বন্ধুদের সাথে সম্পর্ক না করায় তাকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর। তবে অভিযুক্ত ছাত্রীর দাবি, তার মায়ের সাথে ওই ছাত্রী দুর্ব্যবহার করেছে। তিনি এর প্রতিবাদ করলে তাকে বরং আঘাত করে সে।

ঘটনাটি গত ৩০ নভেম্বরের হলেও এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন আক্রান্ত ছাত্রীর বাবা। একই সাথে ওই ছাত্রী ও তার মাসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে কোতয়ালী মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছেন তার মা। তবে অভিযুক্ত ছাত্রীর মা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা হোসেন এবং কোতয়ালী থানার ওসি আজিমুল করিম।

বরিশাল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী আবিরা সরোয়ার শেফা ও শাবিকুন নাহার শশি। তারা পরস্পরের বন্ধু এবং বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী। গত ৩০ নভেম্বর সকালে স্কুল ক্যাম্পাসে সংঘাতে লিপ্ত হয় তারা। শেফা জানান, পূর্ববিরোধের জের ধরে স্কুল ক্যাম্পাসে জুনিয়রদের সামানে তাকে মারধর করে শশি। এ ঘটনার পর তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। তাকে ডাক্তারও দেখানো হয়। শশি তার ছেলে বন্ধুদের তার (আবিরা) পেছনে লেলিয়ে দিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

তবে শশি জানান, শেফা তার মায়ের সাথে দুর্ব্যবহার করেছেন। এর কারণ জানতে চাইলে স্কুল ক্যাম্পাসে তাকে প্রথমে আঘাত করে সে। এ কারণে তিনি তাকে একটি চড় মেরেছেন মাত্র। শেফার পেছনে বন্ধুদের লেলিয়ে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে শশি বলেন, নিজে থেকেই ডেসপারেট শেফা।

এদিকে, স্কুল ক্যাম্পাসে ৩০ নভেম্বরের ওই ঘটনার পর শেফা বাসায় অস্বাভাবিক আচরণ করছে বলে অভিযোগ করেন তার বাবা জেলার আগৈলঝাড়া থানার ওসি গোলাম সরোয়ার। এ কারণে ওই ঘটনায় গত মঙ্গলবার স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে আনুষ্ঠানিক বিচার চেয়েছেন তিনি। তার মেয়ের সহপাঠী স্কুলের বাইরে একটি বিশাল গ্যাংয়ের সাথে মিশে তার মেয়েকেও সেই পথের পথিক বানাতে চায় বলে দাবিকরেন তিনি।

এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মেয়ের বান্ধবী শশি, তার মা ফাতেমা বেগম এবং তার দুই বন্ধুর বিরুদ্ধে কোতয়ালী মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছেন শেফার মা মোসাম্মত মৌসুমী। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে শশির মা ফাতেমা খাতুন চম্পা বেগম বলেন, শেফা উচ্ছৃংখল জীবন যাপন করেন। মেয়ের বান্ধবীকে উচ্ছৃংখলতা পরিহার করতে বলায় এমন পরিস্থিতির উদ্রেক হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

এ ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা হোসেন। স্কুলের বাইরে শিক্ষার্থীদের কোনো অনৈতিক ঘটনা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিগোচর হলেও তারও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। এদিকে, কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আজিমুল করিম জানান, মোসাম্মত মৌসুমীর লিখিত অভিযোগ মামলা হিসেবে রুজু হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন আসামি গ্রেফতার হয়নি। অপরদিকে, সরকারি বালিকা বিদ্যালয় স্কুল ছুটির সময় শিক্ষার্থীরা গেটের বাইরে বখাটেদের ইভটিজিংয়ের শিকার হন এবং বিষয়টি দেখার কেউ নেই বলে জানিয়েছেন ওই স্কুলের দারোয়ান।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin