প্রাণ বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা গায়ক তৌসিফের

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

হত্যার হুমকি পেয়ে নিরাপত্তা চেয়ে গত ২২ জুন বিকেলে মোহাম্মদপুর থানায় জিডি করেন জনপ্রিয় গায়ক তৌসিফ আহমেদ। মোহাম্মদপুরের এক মাদক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে অনবরত জীবননাশের হুমকি পাচ্ছেন বলে এই জিডি করেন তিনি।

তৌসিফ জানান, তার বাসায় যিনি কাজ করেন তার ছেলেকে গত ২১ জুন কয়েকজন মিলে মারধর করলে তিনি এর প্রতিবাদ জানান এবং ওদের হাত থেকে ছেলেটিকে রক্ষা করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। এরপর সেদিন সন্ধ্যার পর থেকে আরিফ নামে একজন তাকে ফোন করে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে এবং তাকে প্রশাসক দিয়ে মেরা ফেলার হুমকি দিচ্ছে। তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ওই আরিফ মোহাম্মদপুরের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে অসংখ্য মামলাও আছে।

এরপর আরিফের বিরুদ্ধে মোহাম্মদপুর থানায় জিডি করেও কোনো লাভ হয়নি বলে আজ (২৪ জুন) ঢাকা পোস্টকে জানিয়েছেন এই গায়ক। জিডির পরও তাকে ফোন করে বারবার প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে তৌসিফ ভয়ে বাসা থেকেও বের হতে পারছেন না বলেও জানিয়েছেন।

তৌসিফ বলেন, ‘থানায় গিয়ে জিডি করলাম। সাংবাদিকরা গোটা দেশবাসীকে জানাল আমার সাথে কি হয়েছে। টিভিতেও হুমকিদাতার রেকর্ডিংসহ প্রচার করা হলো। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় এখন পর্যন্ত তাকে খুঁজে বের করে গ্রেপ্তার বা আইনের আওতায় নিয়ে আসা সম্ভব হলো না। অথচ তার নামে খুন করাসহ প্রায় ২০টির মত মামলাই আছে। তার মাদক ব্যবসা চোখের সামনেই দেখছি রমরমা চলছে। জিডির পরও সে মনে হয় না একটুও বিচলিত বোধ করছে বা ভয় পেয়েছে।’

তৌসিফ আরও বলেন, ‘তার সকল কথাই তো তাহলে ঠিক। সবই তার পকেটে। সে যা ইচ্ছা করতে পারে। তার ছেলেরাও বুক উঁচিয়ে ঘুরছে আর আমাকে প্রাণ ভয়ে লুকিয়ে থাকতে হচ্ছে। বাসার সামনে যেতেও ভয় লাগে। কখন জানি চোরাগোপ্তা হামলা হয়?’

প্রাণে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও কামনা করেন এই গায়ক, ‘দেশের সংগীতে অবদান রাখার জন্য ও একজন বাংলাদেশি হিসেবে আমি প্রাণে বাঁচতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin