প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি চরফ্যাশন(ছবিঘর)

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

চরফ্যাসন  বাংলাদেশের ভোলা জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা, যা ৪টি থানার অধীনে ১টি পৌরসভা ও ২১টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এটি বরিশাল বিভাগ এর অধীনে ভোলা জেলার দক্ষিণাংশে অবস্থিত। এটি কৃষি ও জেলে ভিত্তিক অঞ্চল। কৃষি কাজের মধ্যে প্রধানত ধান, ডাল, আলু, সুপারি, নারকেল ইত্যাদির চাষ করা হয়ে থাকে।

এই উপজেলায় মেঘনা নদী ও তেতুলিয়া নদীর মোহনায় কয়েকশ বছর আগে জেগে ওঠা চর কুকরী মুকরীতে চর কুকরি-মুকরি বন্যপ্রাণ অভয়ারণ্য গড়ে তোলা হয়েছে, যেখানে রয়েছে হরিণ। এ ছাড়া রয়েছে অতিথি পাখি, লাল কাঁকড়া, বন মহিষ, বানর, বনবিড়াল, উদবিড়াল, শেয়াল, বনমোরগ সহ নানা প্রজাতির বন্য প্রাণী।

উপজেলায় চিত্তাকর্ষক স্থানের মধ্যে রয়েছে তারুয়া সমুদ্র সৈকত, এবং উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় ওয়াচ টাওয়ার জ্যাকব টাওয়ার , বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ উপজেলা ভোলা-৪ এর অন্তর্ভুক্ত, যা চরফ্যাশন ও মনপুরা উপজেলা নিয়ে গঠিত এবং এটি ১১৮ নং সংসদীয় আসন হিসেবে চিহ্নিত।

প্রশান্তি পার্ক , বেতুয়া চরফ্যাসন
বেতুয়া ঘাট ,প্রশান্তি পার্ক
বেতুয়া ঘাট থেকে মেঘনা নদীর দৃশ্য
নদীর বিশালতা উপভোগ করার জন্য একটি উপযুক্ত জায়গা
জীবনের গল্প চলছে মেঘনার পাড়ে
মাদ্রাজ জেলে পাড়া , চরফ্যাসন
রাতের জেলে পাড়া , মনে হচ্ছে রুপ কথার কোন এক রাজ্য
যার জন্য এতো আয়োজন সেই রুপালি সম্পদ ইলিশ
স্বপ্নের মতো বিশাল এই মেঘনা নদী কতো যে আশা আর ভাঙ্গার গল্পের সাক্ষী এই নদী কে জানে?
নদী ভাঙ্গন , বন্যা, নানা দূর্যোগকে সঙ্গী করেছে যে জীবন ,সেই জীবনের একটি চিত্র
এইখানেও সন্ধ্যা নামে ,ইট খোলা স্বপ্ন না দুঃস্বপ্ন তা তারা এখনো টের পাইনি
চায়ে চুমুক দিবার অপেক্ষায় এক ক্লান্ত শরীর
জীবন যেখানে যেমন
চলছে বাটা
সাজানো আয়োজন

ভোলা জেলা বাংলাদেশের বৃহত্তম ব-দ্বীপ সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-গুলিস্তান/যাত্রাবাড়ি/ফার্মগেইট জাতীয় মহাসড়কে হয়ে লক্ষ্মীপুর। লক্ষ্মীপুর থেকে সি.এস.জি/অটোরিক্সা/বাইক যোগে মজুচৌধুরীর হাট। মজুচৌধুরীর হাট থেকে বাস/অটো/সি.এন.সি/মাহেন্দ্রা/ট্যাক্সি যোগে মোস্তফা কামাল বাস স্ট্যান্ড। বাস স্ট্যান্ড থেকে সরাসরি চরফ্যাসন বাস স্ট্যান্ড। ঢাকা থেকে মাওয়া ফেরিঘাট। মাওয়া ফেরিঘাট থেকে বরিশাল। বরিশাল থেকে স্পীড বোট অথবা লঞ্চ অথবা বাস যোগে ভোলা। ভোলা থেকে বাস/অটো/সি.এন.সি/মাহেন্দ্রা/ট্যাক্সি যোগে চরফ্যাশন উপজেলা। নদী পথে- সদরঘাট থেকে সরাসরি চরফ্যাশন বেতুয়া ও ঘোষারহাট লঞ্চ যোগে আসা যায়। দূরত্ব ২৫০ কিলোমিটার। যাত্রাসময় প্রায় ৮ ঘণ্টা। রেল পথে চরফ্যাশন উপজেলার সাথে সরাসরি কোন যোগাযোগ নাই।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin