প্রমাণপত্র রাস্তায় রাস্তায় নিয়ে ঘুরলে চলবে নাঃ অ্যাডভোকেট দিপু

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

সাম্প্রতিক সময়ের আলোচিত বিষয় হলো নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরুদ্ধে দেবোত্তর সম্পত্তি দখলের অভিযোগ। এ বিষয়টিকে কেন্দ্র করে একটি জোরালোভাবে তৎপর রয়েছে। তারা মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে আসছে। আর এ নিয়ে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাঝে বিপরীত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। মেয়র নিজেও বলেছেন, জাল দলিল করে

থাকলে তো আদালত রয়েছে। বাইরে কথা বলে কি লাভ।

অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু বলেন, আমরা তো বিশ্বাস করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বিচার বিভাগে কোনো প্রভাব সৃষ্টি করে না। বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীন। ন্যায় বিচারের দ্বার এখানও উন্মুক্ত। ন্যায় বিচারের জন্য যেখানে মামলা চলছে সেখানে পক্ষ বিপক্ষ আছে। আমি আমার প্রমাণপত্র কোর্টে সাবমিট করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করবো। প্রমাণপত্র নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরলে চলবে না। এটা কোনো বিজ্ঞ আইনজীবীর কাজ না।

এদিকে এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও প্রভাবশালী আইনজীবী অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু আরো বলেন,যদি এখানে অন্যায় হয়ে থাকে তাহলে দলিল দস্ত বেজ পাবলিকিলি না দেখিয়ে কোর্টে সাবমিট করাই ভালো। আমি আইনজীবী আমার কাছে যদি কেউ এসে বলে আমার সাথে অন্যায় হয়েছে, তাহলে আমি আমার সকল ডকুমেন্ট নিয়ে কোর্টে যাবো। আমি তো পাবলিকলি চিৎকার করবো না।

৭ ফেব্রুয়ারী রোববার দুপুরে সময়ের নারায়ণগঞ্জকে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি এসব কথা বলেন।

এ ব্যাপারে সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, জিউস পুকুর নিয়ে তিনি বলেন এটা নিয়ে এখন রাজনীতি হচ্ছে। জিউস পুকুরের অংশ আমার নানা কিনেছে আরো চল্লিশ বছর আগে। সেই হিসাবে আমার মায়ের নাম এসেছে। এ বিষয়ে আমার পরিস্কার বক্তব্য হলো আমার নানা যদি কোনো জাল দলিল করে থাকেন তার জন্য তো আদালত রয়েছে। আদালতে এটা প্রমাণ করতে পারলেইতো সমস্যা সমাধান হয়ে যায়। আমার বিরুদ্ধে কথা বলে কি লাভ। আমিতো কোনো দলিল বাতিল করতে পারবোনা। আমার সেই আইনী ক্ষমতাও নেই।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে হিন্দুদের দেবোত্তর সম্পত্তি দখলের যে অভিযোগ করা হচ্ছে সেই বিষয়টি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। আদালতই প্রমাণ করবেন কে প্রকৃত দোষী আর কে নির্দোষ। তারপরেও এই বিষয়টি নিয়ে কয়েকদিন পর পরই সভা সমাবেশের আয়োজন করা হচ্ছে। ফলে এ বিষয়টি নিয়ে জনসাধারণে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। আদালতের বিচারাধীন মামলার বিষয়টি নিয়ে কেন রাস্তায় নামতে হবে তা নিয়ে সচেতন মহলে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সেই সাথে যারা সমাবেশে বক্তৃতা করছেন তাদের মধ্যে কয়েকজন আইনজীবীও রয়েছেন। তাহলে তাদেরও কি আইনের প্রতি শ্রদ্ধা নেই সর্বমহলে সেটাই প্রশ্ন হিসেবে দেখা দিয়েছে।

সুত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin