না.গঞ্জে লকডাউনের প্রথম দিনে পরিবহন সংকটে শ্র‌মিকরা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আজ সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জসহ ৭জেলায় শুরু হ‌য়ে‌ছে ক‌ঠোর বি‌ধি নি‌ষেধ। জন সাধারনের চলাচলসহ সার্বিক কার্যাবলির উপর নিষেধাজ্ঞার প্রথম দিনে ব্যাপক জন দুর্ভোগে পরেছেন সাধারন মানুষ।

বিশেষ করে নারায়ণগ‌ঞ্জে খোলা রাখা শিল্প কারখানাগামী হাজার হাজার শ্রমিক পরিবহন সংকটের পাশাপাশি অঝোর ধারায় বৃষ্টি আর রাস্তার হাটু ছুই ছুই পানির কারণে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

নারায়ণগঞ্জে গণ পরিবহন বন্ধ থাকলেও মহাসড়কে সকাল থেকে চলছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা, ভ্যান, রিকশাসহ প্রাইভেট কার। এছাড়াও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্করোড ও মহাসড়‌কে কুমিল্লা, সিলেট, ফেনীসহ দূরপাল্লার বেশকিছু অঞ্চলের বাসও চলাচল করতে দেখা যায়। পাশাপাশি চলছে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জের মৌমিতা ও অনাবিল সার্ভিসের বাস। বেলা বাড়ার সাথে সাথে মহাসড়কে যানবাহনের সংখ্যাও বেড়েছে অনেক। তবে নগরীর প্রায় সকল মার্কেট, বিপনী বিতান ছিল বন্ধ।

এদিকে বিধি নিষেধ উপেক্ষা করেই গত অর্ধমাস ধরে পানি বন্দি সিটি কর্পোরেশনের ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা মানব বন্ধন করেছেন। শুধু ঐ ওয়ার্ডই নয়, ডিএনডির পুরো এলাকাই এখন অতি বৃষ্টির কারণে পানির তলে ডুবে আছে। এসব পানিবন্দি মানুষ বর্তমান লকডাউন পরিস্থিতিকে মরার উপর খাড়া ঘা বলে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ ও পুলিশ সুপার জাহেদুল আলম জানিয়েছেন, বিধি নিষেধের পুরোটা সময় জেলায় ১৮টি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে। পাশাপাশি জেলায় মোট ৩০টি পয়েন্টে পুলিশ চেকপোষ্ট বসানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় রাজধানী ঢাকার পাশের সাত জেলায় কঠোর বিধি নিষেধ ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময়ে রাস্তায় মানুষও চলাচল করতে পারবে না। শুধু জরুরি সেবা ও মালবাহী গাড়ি চলাচল করতে পারবে বলে এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin