না.গঞ্জে আবারো ভূয়া ডাক্তার গ্রেপ্তার

শেয়ার করুণ

জেলার সোনারগাঁয়ে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) এর তথ্যের ভিত্তিতে সোনারগাঁ উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের যৌথ অভিযানে নয়ন (৩৩) নামে এক ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (২৯ মে) বিকেলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইব্রাহিম ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রতিনিধি ডাঃ মো. মোশারফ হোসেনের যৌথ তত্ত্বাবধানে উপজেলার কদমতলী গ্রাম থেকে নুরুল আমিনের ছেলে মো. জানে আলম নয়নকে তার নিজস্ব চেম্বার “আম্বিয়া মেডিকেল হল” থেকে আটক করা হয়।

পরে তিনি বৈধ কোন সনদপত্র দেখাতে না পারাসহ নিজের অপরাধ স্বীকার করলে নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট তাকে গ্রেপ্তারে নির্দেশ দিয়ে এক বছরের কারাদন্ড এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করেন।

জানাগেছে, গ্রেপ্তারকৃত নয়ন ভুয়া পদবী ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবৎ কদমতলী ধন্ধীবাজার এলাকায় মেডিকেল প্র্যাকটিস করে আসছিলেন। বন্দর উপজেলায় তার চাচার ফার্মেসিতে সহকারী হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করার পর নিজের এলাকায় গিয়ে নিজেকে মা ও শিশু বিশেষজ্ঞ বলে প্রচার করেন এবং রোগী দেখা শুরু করেন।

তিনি এমবিবিএস (এএম), এমডি (অল্টা মেডিসিন), ইন্টিগ্রেটেড ফিজিশিয়ান, এমপিএইচ (আরসিএইচ), আরটিএসএস (ডিইউ), আইসিইউএইচসি (আইসিডিডিআরবি), পিজিসিসি (ইসিডি-সি) ভুয়া ডিগ্রী/পদবী ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন রকম অনুমোদন ব্যাতিরেকেই মা ও শিশু, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ, মেডিসিন, চর্ম-যৌন (সেক্স) ও ব্যথা রোগে অভিজ্ঞ পরিচয় দিয়ে নিজ বাড়িতে “আম্বিয়া মেডিকেল হল” নামে একটি চেম্বার খুলে নিয়মিত রোগী দেখছেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইব্রাহিম বলেন, প্রতারক চিকিৎসক প্র্যাকটিসের স্বপক্ষে কোন প্রকারের বৈধ কাগজপত্রাদি দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালত বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন- ২০১০ এর ২৯ ধারা মোতাবেক ১ বছরের কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কার হয়েছে

নিউজটি শেয়ার করুণ