না.গঞ্জের ২৭ ভাস্কর্যের নিরাপত্তায় এসপি জায়েদুলের কঠোর নির্দেশনা

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রেক্ষাপটে নারায়ণগঞ্জের ভাস্কর্য নিরাপত্তায় নির্দেশনা দিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার(এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম।


মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, নারায়ণগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধেরসহ সর্বমোট ২৭টি ভাস্কর্য আছে। সেগুলো যাতে কেউ বিনষ্ট করতে না পারে সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। সে লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় নিশ্চিত করা হচ্ছে। একইসাথে সাদা পোশাকে নিরাপত্তা ও সিসিটিভির ব্যবস্থা করার ওপর জোর প্রদান করা হয়েছে।

জেলার পুলিশ সুপার আরও বলেন, করোনার সম্ভাব্য দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সকলে সচেতন থাকার অনুরোধ করছি। একইসাথে আসন্ন দুটি উৎসব বড়দিন ও থার্টি ফার্স্ট নাইট সবাই সর্তকর্তার সাথে পালন করবেন।

মুজিববর্ষে ঢাকার ধোলাইরপাড়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হলে তার বিরোধিতা শুরু করেন কওমি মাদ্রাসাকেন্দ্রিক বিভিন্ন সংগঠনের জোট হেফাজতে ইসলামের নেতারা। এরই প্রেক্ষিতে ভাস্কর্যকে ঘিরে তারা বিভিন্ন  বিরোধীতাপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করে। সম্প্রতি ৪ ডিসেম্বর কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর নির্মাণাধীন ও ১৭ ডিসেম্বর একই জেলায় বাঘা যতীনের ভাস্কর্যে ভাংচুর চালানো হয়। এরই প্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগরীর ভাস্কর্যগুলোর বিষয়ে পুলিশ সদস্যদের নির্দেশনা দেন ডিএমপি কমিশনা। সেই প্রেক্ষাপটে নারায়ণগঞ্জের ভাস্কর্য নিয়ে নিরাপত্তা প্রসঙ্গে এই নির্দেশনা দেন জেলার পুলিশ সুপার(এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin