না.গঞ্জের লঞ্চ ধর্মঘট, বিপাকে সাধারণ যাত্রীরা

শেয়ার করুণ

শ্রমিকদের নূন্যতম মজুরি বিশ হাজার টাকা ও মৃত্যুকালিন ক্ষতিপূরণ বারো লক্ষ টাকা নির্ধারণসহ সাত দফা দাবিতে নারায়ণগঞ্জে যাত্রীবাহি ও পণ্যবাহিসহ সব ধরণের নৌযান বন্ধ করে দিয়ে কর্মবিরতি পালন করছেন নৌযান শ্রমিকরা। দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সাধারণ নৌ শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ব্যানারে সোমবার (২৮ নভেম্বর) সকালে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ টার্মিনালে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেন তারা। সারা দেশব্যাপি কর্মসূচির অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জের নৌযান শ্রমিকরা এই কর্মসূচী পালন করছেন। নৌযান শ্রমিকদের আরও বারোটি সংগঠন তাদের সাথে যুক্ত হয়ে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে এই কর্মবিরতিতে অংশ নেন।

ধর্মঘটের ফলে নারায়ণগঞ্জ থেকে নদী পথে চলাচলকারি প্রায় দেড় হাজার কোস্টার ট্যাংকার জাহাজ, তিন হাজার বালুবাহি বাল্কহেড ও পাঁচটি রুটে সত্তরটি যাত্রীবাহি লঞ্চ চলাচল পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে।

ধর্মঘটের ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন না.গঞ্জ নৌপথে যাতায়াতকারী যাত্রীরা। দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায় সারিবদ্ধভাবে বেধে রাখা আছে লঞ্চগুলো। অলস সময় কাটাচ্ছে লঞ্চের স্টাফরা। ধর্মঘটের কথা না জেনে অনেকে এসে পড়েছেন বিপাকে।

বৃদ্ধ মাকে নিয়ে দিদার এসেছেন চাদপুর যাবেন বলে। এসে দেখেন লঞ্চ চলাচল বন্ধ। তিনি জানান বৃদ্ধ মাকে নিয়ে সড়ক পথে যাতায়াত অনেক কষ্টের। কিছুটা আরামদায়ক হওয়ায় এই পথেই যাতায়াত করে থাকেন। এখন বাধ্য হয়ে সড়ক পথেই যেতে হবে বৃদ্ধ মাকে নিয়ে। দিদারের মত অনেক যাত্রীকেই দেখা গেছে লঞ্চ টার্মিনালে এসে ফেরত যেতে। কবে এ ধর্মঘট শেষ হবে জানেনা শ্রমিক মালিক কেউ।

নিউজটি শেয়ার করুণ