নারায়ণগঞ্জে ১২ জনের পর আরো ৪ জনের সনদ বাতিল

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের প্রমাণ না পাওয়ায় আরও ৩০ জনের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল করেছে সরকার যার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলার চারজন রয়েছে। নারায়ণগঞ্জের মো. তারা মিয়া, মো. নুরুল ইসলাম, মৃত মো. আ. জলিল এবং মো. আ. হাকিমের সনদ বাতিল করেছে সরকার।

জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকার) ৬৮তম সভায় সুপারিশের ভিত্তিতে এদের সনদ বাতিল করে গত ১৮ অক্টোবর গেজেট জারি করা হয়েছে।

গত জুলাই মাসে ১৩৪ জনকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির গেজেট বাতিল করা হয়। এর আগে গত ৭ জুন বিমান বাহিনী ও বিজিবিতে যোগ দেওয়ার সময় গেজেটভুক্ত হয়েছিলেন এমন এক হাজার ১৮১ জনের মুক্তিযোদ্ধা সনদও বাতিল করা হয়েছে। তবে পরে হাই কোর্ট সেই আদেশ স্থগিত করে দেয়।

এর আগে গত ডিসেম্বরে খবরে প্রকাশিত হয় নারায়ণগঞ্জ জেলার ১২ জন মুক্তিযোদ্ধার গেজেট ও সনদ বাতিল হতে যাচ্ছে। ‘প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নন’ এমন অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

ওই ১২ জন হলেন বন্দর উপজেলার শুভকরদী এলাকার আবুল কালাম, স্বল্পেরচক এলাকার আবদুর রহমান, মদনগঞ্জ লক্ষারচর এলাকার আলী হোসেন, ১২৭ জি.এ রোড এলাকার মো. লিয়াকত আলী, ২৪ এম ঘোষাল রোড এলাকার মো. শাহাবদ্দীন, সবাদী এলাকার মো. আলী, নবীগঞ্জ এলাকার আব্দুল বাতেন, সোনারগাঁ উপজেলার মো. ইছাক মিয়া, অর্জুন্দী এলাকার ন‚র মোহাম্মদ মোল্লা, আমিনপুর বসুরবাগ এলাকার গিয়াসউদ্দিন, সনমান্দী ইউনিয়নের চরভুলুয়া এলাকার খন্দকার আবু জাফর ও মোগড়াপাড়া ইউনিয়নের নগর সাদীপুর এলাকার মো. কামাল হোসেন।

এদের মধ্যে সোনারগাঁয়ের খন্দকার আবু জাফর সোনারগাঁ থানা বিএনপি সভাপতি। বন্দরের লিয়াকত আলী জাতীয় শ্রমিকলীগের প্রয়াত কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের ভাই।

সূত্রঃনিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin