নারায়ণগঞ্জে বাড়ছে অক্সিজেনের জন্য হাহাকার

শেয়ার করুণ

দেশে করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হবার সাথে সাথে নারায়ণগঞ্জের অবস্থাও খারাপের দিকে যাচ্ছে। জেলা সিভিল সার্জন অফিসের হিসেব অনুযায়ী প্রতিদিনই প্রায় দুইশোর অধিক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। শনাক্তের হার প্রায় প্রতিদিনই ৩০% এর কাছাকাছি থাকছে।

জেলায় করোনার সংক্রমণ বাড়ার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে অক্সিজেনের চাহিদা। যারা হাসপাতালে চিকিৎসা না নিয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের জন্য অক্সিজেনের চাহিদা বাড়ছে প্রতিনিয়ত। করোনার প্রকোপের শুরু থেকেই জেলার প্রায় ১৫ টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জেলাবাসীকে এই সেবা দিয়ে আসছিল। কিন্তু করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় এখন তাদের সীমিত অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে সবাইকে সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা। আক্রান্ত রোগীর স্বজনরা অক্সিজেনের জন্য যায়গায় কড়া নাড়ছেন। কেউ কেউ পেলেও অধিকাংশই থাকছেন এই সেবার বাহিরে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক খুললেই এই হাহাকারের বাস্তবতা বুঝা যায়। অসহায় রোগীর স্বজনরা একটি অক্সিজেন সিলিন্ডারের জন্য পোস্ট দিচ্ছেন। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পেজে বার্তা পাঠাচ্ছেন অক্সিজেন চেয়ে। এক যায়গায় না পেয়ে আরেক যায়গায় ছুটছেন। এক সামাজিক সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তাদের কাছে অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে ১৪ টি। যার সবগুলোই করোনা অক্রান্ত রোগীদের বাসায়। প্রতিদিন অন্তত ৫০ জন সিলিন্ডারের জন্য আবেদন করছেন। ইচ্ছা থাকলেও সীমাবদ্ধতার জন্য সবাইকে সাহায্য করতে পারছেন না তারা। একই চিত্র অন্যান্য সংগঠনগুলোরও। প্রয়োজন অনুযায়ী কেউই সরবরাহ করতে পারছেন না অক্সিজেন।

নিউজটি শেয়ার করুণ