নাঃগঞ্জে স্বামীকে হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন, পরকীয়া প্রেমিকের মৃত্যুদণ্ড

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের গার্মেন্টকর্মী আমিনুল ইসলাম কালু হত্যাকাণ্ডে দায়ের করা মামলার রায়ে স্ত্রীসহ ৩ জনকে যাবজ্জীবনসহ পৃথক ধারায় কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই রায়ে নিহতের দণ্ডিত স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিককে পৃথক দুটি ধারার মধ্যে একটিতে মৃত্যুদণ্ড ও আরেকটিতে অর্থদণ্ডসহ কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক বেগম সাবিনা ইয়াসমিন দণ্ডিত চার আসামির উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতরা হলেন- নিহত আমিনুল ইসলাম কালুর স্ত্রী রিক্তা বেগম (২৭), খুনের সহযোগী আতিকুল ইসলাম আতিক (২৭), মিজানুর রহমান মিতু (২৪) ও পরকীয়া প্রেমিক রেজাউল করিম পলাশ (৩০)।

রায় ঘোষণার সত্যতা নিশ্চিত করে আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর জাসমিন আহমেদ জানান, রায়ে পলাশকে ৩০২/৩৪ ধারায় মৃত্যুদণ্ডসহ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে এবং ২০১ ধারায় ৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডসহ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়; জরিমানা অনাদায়ে আরো ২ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন।

রিক্তা বেগমসহ ৩ জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডসহ ৩০ হাজার টাকা করে প্রত্যেককে অর্থদণ্ড করা হয়েছে। অর্থ অনাদায়ে আরও ২ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন। এছাড়াও দণ্ডিত এই তিন আসামিকে ২০১ ধারায় আরও ৩ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ডসহ ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছেন। জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ মাস করে সশ্রম কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন।

মামলার বাদী নিহতের বড়ভাই শামসুল হক জানান, আমিনুল ইসলাম কালু (৩৫) ও রিক্তা বেগমের ১০ বছরের সংসারে ইব্রাহীম (৭) নামে তাদের একটি পুত্রসন্তান আছে। আমিনুল ইসলাম কালু গার্মেন্টে কাজ করত আর তার স্ত্রী রিক্তা বেগম বাসায় রেজাউল করিম পলাশ,আতিকুল ইসলাম আতিক ও মিজানুর রহমান মিতুকে মেস করে খাওয়াত।

এতে রেজাউল করিম পলাশের সঙ্গে রিক্তার পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক হয় এবং অবৈধ মেলামেশা চলতে থাকে। এ সম্পর্কে আমিনুলকে হত্যা করে রিক্তা বেগমকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয় রেজাউল। এতে রেজাউল তার আরো দুই সহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে ২০১৯ সালের ১ মার্চ বিকালে আমিনুলকে বাসা থেকে ডেকে সোনারগাঁয়ের কাফুরদী এলাকায় নিয়ে জবাই করে হত্যা শেষে লাশ নদীর পাড়ে ফেলে দেয়। ২ মার্চ সকালে আমিনুলের মৃতদেহ নদীর পাড় থেকে পুলিশ উদ্ধার করে।

সূত্রঃ যুগান্তর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin