দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন মেধাশূন্য সাংঘাতিক দুঃসময়ের ভিতর দিয়ে যাচ্ছেঃ খালিদ মুহীউদ্দীন

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন সাংঘাতিক দুঃসময়ের ভিতর দিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক খালেদ মুহিউদ্দীন। বেসরকারি রেডিও চ্যানেল জাগো এফএমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন এবং তারকা সংকট নিয়ে একটি অনুষ্ঠানে খোলামেলা আলোচনা করেন ডয়চে ভেলের বাংলা টিমের প্রধান। সংগীতশিল্পী তানভীর তারেকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে দেশের তারকা সংকটের কারন নিয়ে কথা বলেন এই সাংবাদিক।

খালেদ মুহিউদ্দীন বলেন আমরা সবাই দেশের সংস্কৃতি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করি কিন্তু আমাদের নিজেদের অবদান কতটুকু। জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী কিংবা চলচিত্র শিল্পের মৃত্যুর পর আমরা বলি তাদের মৃত্যুতে শিল্পের অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে। তিনি সবার কাছে প্রশ্ন রাখেন এন্ড্রু কিশোর, আইয়ুব বাচ্চু কিংবা রাজ্জাক শেষ কবে নতুন কোন জনপ্রিয় গান কিংবা ছবি করেছেন। তার ভাষায় এন্ড্রু কিশোর কিংবা আইয়ুব বাচ্চু মৃত্যুর ২০ বছর আগেই সংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে বিদায় নিয়েছেন।

সংস্কৃতিত অঙ্গনে সৃজনশীল কাজের অভাব আর অনুকরন প্রবনতা বর্তমান সংকটের জন্য দায়ী বলে মনে করেন ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের সাবেক বার্তা প্রধান। মানহীন শিল্পকর্ম আর মেধাশূন্য নির্মাতাদের দৌরাত্ম শিল্পের বিকাশের বড় অন্তরায়। বর্তমানে সংগীত কিংবা খেলাধুলার চ্যানেল সংকটের কারন জানতে চাইলে তিনি জানান আমাদের দেশে ক্রিকেট বাদে আর কোন খেলারই আগের জৌলুশ নেই। এক ক্রিকেট বাদে কোন খেলারই জনপ্রিয়তা নেই। এক খেলার উপর নির্ভর করে কোন চ্যানেল খোলার কোন ঝুকিই কেউ নিবেনা। ৯০ এর দশকের আবাহনী- মোহামেডান ফুটবলের কথা স্মরণ করে তিনি আক্ষেপ ক রে বলেন বর্তমান প্রজন্মের ৯৮ ভাগই এদেশের ফূটবল দলের অধিনায়ককে চিনেন না।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin