দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশ এখন অনেক শক্তিশালী: কাদের

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বাংলাদেশ এখন দুর্যোগ মোকাবেলায় অনেক বেশি শক্তিশালী বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ শুক্রবার ধানমণ্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধী সুরক্ষা সামগ্রী ও বন্যাকবলিত জেলায় ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি। জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত নিজের সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। পরে প্রতিনিধিদের মাধ্যমে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী এসব সুরক্ষা সমাগ্রী ও বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট এ সংকটময় পরিস্থিতিতে দেশের জনগণের জীবন ও জীবিকা রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একের পর এক জনকল্যাণমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করে চলেছেন। অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বাংলাদেশ এখন দুর্যোগ মোকাবেলায় অনেক বেশি শক্তিশালী।

বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে মানুষ যাতে খাদ্যের অভাবে কষ্ট না করে সে জন্য প্রধানমন্ত্রী নেতৃত্বে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, দেশে প্রতিটি জনগণ জানে, বর্তমান বৈশ্বিক করোনাভাইরাস মহামারি ও দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে অর্থনৈতিক গতিশীলতা পুনরুদ্ধারেও তার বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি দেশের জনগণের আস্থা রয়েছে।

al office dhanmondi

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, দেশের জনগণের কাছ থেকে নির্বাচন ও আন্দোলনে প্রত্যাখ্যাত হয়ে বিএনপি নেতারা এখন অপরাজনীতির অন্ধকার গিরিখাতে পতিত হয়েছেন। তারা দিগভ্রান্ত পথিকের মতো প্রলাপ করছেন। নিজেদের দুর্বলতা ঢাকতে সরকারের বিরুদ্ধে চাতুর্যপূর্ণ ও বিষোদগার কথাবার্তা বলছেন।প্রেস ব্রিফিংনির্ভর গলাবাজির রাজনীতি করছেন। কিন্তু তারা জানে না গলাবাজির দিন শেষ হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের জনগণ এখন অনেক সচেতন।

তিনি আরো বলেন, বিদেশ যেতে চাওয়া ব্যক্তিদের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। এ জন্য কিছু নমুনা পরীক্ষার কেন্দ্রও সুনির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নমুনা পরীক্ষার দীর্ঘ লাইনের কারণে তাদের ভোগান্তি বাড়ছে। পাশাপাশি রিপোর্ট পাওয়া পর্যন্ত তাদের উদ্বেগের মধ্যে থাকতে হচ্ছে। তাই বিদেশ গমনেচ্ছুদের নমুনা পরীক্ষা রিপোর্ট দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। স্বল্প সময় ও অগ্রাধিকারভিত্তিতে তাদের রিপোর্ট দেওয়ার প্রতি স্বাস্থ্য বিভাগের নজর দেয়া দরকার।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক, দলের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী ও উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin