দিন যায় কথা থাকে : এটিএম কামাল

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

প্রয়াত সংগীত শিল্পী সুবীর নন্দীর কালজয়ী গান, “দিন যায় কথা থাকে, সে যে কথা দিয়ে রাখলো না, বলে যাবার আগে ভাবলো না, সে কথা লিখা আছে বুকে”।


নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদ্য বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল সম্প্রতি তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক এক্যাউন্টে একটি পোষ্টে দুইটি ছবি শেয়ার করে ক্যাপাশন দিয়েছেন কালজয়ী এই গানটির প্রথম লাইন “দিন যায় কথা থাকে”।

সিটি নির্বাচনের পর নাটকীয়ভাবে বদলে যেতে শুরু করেছে নারায়নগঞ্জের বৃহত দুই রাজনৈতিক দলের চিত্র। দুই দলেই লেগেছে পরিবর্তনের ছোয়া। সরকারী দল তাদের বিভিন্ন কমিটি বাতিল করে আলোচনায় এসেছে। বিএনপি জেলা বিএনপির আহবায়ক তৈমুর আলম খন্দকার ও মহানগর সেক্রেটারি এটিএম কামালকে বহিস্কার করে এসেছে আলোচনায়। মুলত দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে সিটি নির্বাচনে অংশ নেয়ায় শীর্ষ দুই নেতার বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা।

দীর্ঘ দিনের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে এমন সময়ের মুখোমুখি হবেন হয়তো কল্পনাতেও ভাবেন নি এটিএম কামাল। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে যে কোন ধরনের আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন এটিএম কামাল। বারাবার বিভিন্ন অভিযোগে কারাভোগ করেছেন। কারগার থেকে বের হয়ে আবারও দ্বিগুন সাহস নিয়ে নেমেছেন রাজপথে।

একবার হরতালের সমর্থনে মিছিলে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন এটিএম কামাল। পুলিশের লাঠির আঘাতে মাথায়, কানে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হন কামাল। জেলার রাজনীতির বাহিরেও জাতীয় রাজনীতিতে বরাবরই আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রভাগে থাকতেন এই জাতীয়তাবাদী আদর্শের নেতা। ঢাকা সিটি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী ইশরাক আহমেদের নির্বাচনী গনসংযোগেও তিনি ছিলেন অগ্রভাগে।

বহিস্কার হয়ে কিছুটা সাময়িক ম খারাপ হলেও নিজের মনোবল হারান নি এই নেতা। শহীদ জিয়ার আদর্শকে আজীবন জীবনের পাথেয় করে ঈমানের সাথে মৃত্যুবরন করতে চান এই নেতা।

নিজের ফেসবুক একাউন্টে তিনি লিখেন, আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্নেহ আমার জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ প্রাপ্তি।শহীদ জিয়ার আদর্শ ও দেশনেত্রীর স্নেহ বুকে নিয়ে দলের একজন সমর্থক হিসাবে ঈমানের সাথে মৃত্যুবরন করতে চাই।

মূলত দলের আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া এই নেতা সেই স্মৃতিগুলো ভুলতে পারছে না। হঠাৎ নিজের চেনা দলটিও অজানা হয়ে গেছে। এক সময় শহরে বিএনপির আন্দোলন মানেই ছিল এটিমএম কামাল। নিজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের বিভিন্ন ছবি গুলো দেখে নিজেকে খুঁজে ফিরছেন এই নেতা। নিজের ওয়ালে শেয়ার করছেন ছবিগুলো।

সময়ই বলে দিবে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির রাজনীতি কোন দিকে মোড় নিবে। এটিএম কামালকে কী আবারও বুকে টেনে নিবে বিএনপি নাকী আক্ষেপ নিয়েই নিজের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন এটিএম কামাল। তবে এটিএম কামালের রাজনৈতিক নিষ্ক্রিয়তা নিঃসন্দেহে নারায়ণগঞ্জ একজন ক্লিন ইমেজের রাজনীতির জন্য দুঃসংবাদ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin