ত্বকী হত্যা: ভ্রম‌রের আত্মসমর্পণ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর ‘ত্বকী হত্যা মামলা’র আসামী সুলতান শওকত ভ্রমর স্বেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন।

বুধবার (১০ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আত্মসমর্পণের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন আদালতের ইন্সপেক্টর আসাদুজ্জামান ।

দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পরে বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আমলী আদালতের (ক-অঞ্চল) ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাওছার আলমের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। পরে আদালত জামিন আবেদন না-মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়।

২০১৫ সাল পর্যন্ত সুলতান শওকত ভ্রমর জামিনে থাকা অবস্থায়ই দেশত্যাগ করেন। এরপর তিনি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন।

২০১৩ সালে ত্বকী হত্যার পরে দেশজুড়ে যখন আলোচনা হয় তখন এ মামলায় সুলতান শওকত ভ্রমর ও ইউসুফ হোসেন ওরফে লিটনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর ২০১৩ সালের নভেম্বরে ভ্রমর ১৬৪ ধারায় তৎকালীন নারায়ণগঞ্জের জেষ্ঠ বিচারিক হাকিম কে এম মহিউদ্দিনের আদালতে জবানবন্ধি দেন।

সুলতান শওকত ভ্রমরের দেয়া জবানবন্ধি অনুযায়ী র‌্যাব ওই বছরের ৭ আগস্ট নগরীর আল্লামা ইকবাল রোডে প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের পুত্র আজমেরী ওসমানের উইনার ফ্যাশনের অফিসে অভিযান চালায়। ওই অফিস থেকে র‌্যাব রক্তমাখা প্যান্ট, গজারির লাঠি ও নাইলনের রশি উদ্ধার করে।

সুলতান শওকত ভ্রমর তার জবানবন্ধিতে ত্বকী হত্যার বিষদ বর্ণনা দেন। পরে তিনি এ বক্তব্য প্রত্যাহারের আবেদনও করেন।

সুলতান শওকত ভ্রমর নারায়ণগঞ্জের অন্যতম ধর্নাঢ্য পরিবারের সন্তান। তার প্রয়াত পিতা হাজী মো. সোহরাব মিয়া নগরীর অন্যতম শিল্পপতি। তার মা মেহের নিগার মিতা জাতীয় পার্টির রাজনীতির সাথে জড়িত। নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির সভানেত্রী ও সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্যও ছিলেন।

সুত্রঃ লাইভ নারায়ণগঞ্জ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin