ত্বকী হত্যার ৯১ মাস: আসামিদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জের মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার ৯১ মাস উপলক্ষে বিকেলে সমাবেশ ও সন্ধ্যায় আলোক প্রজ্বালন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট চাষাঢ়ায় শহীদ মিনারে এ আয়োজন করে।

সংগঠনের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নিহত ত্বকীর বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি ও সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি সাংবাদিক হালিম আজাদ। সমাবেশে বক্তারা ত্বকী হত্যাকান্ডের বিচারকার্য শুরু করে এই ঘটনার সাথে জড়িত আসামিদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানান।

রফিউর রাব্বি বলেন, বিচারহীনতা ও কর্তৃত্ববাদী শাসন দেশকে ভয়াবহ পর্যায়ে এনে দাঁড় করিয়েছে। শাসকগোষ্ঠীর ছত্রছায়ায় সারাদেশে যেভাবে ধর্ষণের বিস্তার ঘটেছে তা আতঙ্কজনক, উদ্বেগজনক ও ভবিষ্যতের জন্য এক অশনি সংকেত। একে বাসের উপযোগী সমাজ বলা চলে না।

‘বিচারহীনতাকে সরকার প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘জনগণের নিরাপত্তা দেয়ার শপথ করে যারা ক্ষমতা গ্রহণ করেছিলেন তারাই পদে পদে শপথ ভঙ্গ করে চলেছেন, সংবিধান লঙ্ঘন করে চলেছেন, মানুষের জীবন দুর্বিষহ করে তুলছেন। এটাকে কোনভাবেই মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ বলা চলে না। স্বাধীনতার পূর্বে বিদেশী শাসকগোষ্ঠীর শাসনামলেও এমন বিচারহীনতার নজির ছিল না।’ সমাবেশে ত্বকীসহ সাগর-রুনী, তনু ও নারায়ণগঞ্জের আশিক, চঞ্চল, বুলু, মিঠু হত্যার বিচার এবং আড়াই বছর আগে নিখোঁজ শিশু সাদমান সাকির উদ্ধারের দাবি জানান তিনি।

হালিম আজাদ বলেন, সাড়ে ছয় বছর আগে ত্বকী হত্যার তদন্ত শেষ হয়ে অভিযোগপত্র তৈরি করে রাখার পরেও তা আদালতে পেশ করা হয় নাই। প্রধানমন্ত্রীর অনিচ্ছার কারণে এ হত্যার বিচার বন্ধ করে রাখা হয়েছে। এ হত্যাকা-ের সাথে জড়িতরা যেহেতু সরকার দলীয়, সরকারের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে আছে, সে কারণেই সাড়ে সাত বছর ধরে এ বিচার হচ্ছে না। ত্বকী হত্যার বিচারকার্য শুরু ও চিহ্নিত আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি জিয়াউর ইসলাম কাজল, প্রদীপ ঘোষ বাবু, উদীচীর জাহিদুল হক দীপু, বাসদের নিখিল দাস, গণসংহতি আন্দোলনের তরিকুল সুজন, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা হাফিজুর রহমান, কবি আরিফ বুলবুল, শিল্পী অমল আকাশ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৬ মার্চ নগরীর শায়েস্তা খাঁ রোডের বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হয় তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী। দু’দিন পর ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর কুমুদিনী শাখা খাল থেকে ত্বকীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই বছরের ১২ নভেম্বর আজমেরী ওসমানের সহযোগী সুলতান শওকত ভ্রমর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানায়, আজমেরী ওসমানের নেতৃত্বে ত্বকীকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়। তবে এই মামলার বিচারকার্য এখনও শুরু হয়নি। ত্বকী হত্যার বিচার ও চিহ্নিত আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে প্রতি মাসের ৮ তারিখ আলোক প্রজ্বালন কর্মসূচি পালন করে আসছে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট।

সূত্রঃপ্রেস নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin