তৈমূর আলম বিজয়ী হয়ে ছিলেন: হাফিজ

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তৈমূর আলম জয় পেয়েছিল, কিন্তু ইভিএম কারচুপির মাধ্যমে তাকে পরাজিত করা হয়েছে।

সরকারের দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলে সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকালে কথা গুলো বলছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক পানিসম্পদ মন্ত্রী মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ (বীর বিক্রম)।

তাঁর ভাষ্য মতে, ইভিএম মেশিন ডিভাইস দ্বারা নিয়ন্ত্রিত করা যায়।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আয়োজনে চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সামবেশে এ কথা বলেন তিনি।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি এড. আবুল কালামের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সামাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম মাজেদ, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক (ঢাকা বিভাগ) সম্পাদক বেনজীর আহমেদ টিটু, স্বেচ্ছা সেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রমুখ।

হাফিজ আহমেদ বলেন, বিএনপির এক ত্যাগী নেতা তৈমূর আলম খন্দকার। তিনি এখান থেকে নির্বাচনে দাঁড়িয়ে ছিলেন, কেন তাকে বাঁদ দিয়েছে জানি না। এই নির্বাচনে অবশ্যই তৈমূর আলম বিজয়ী হয়ে ছিলেন, আপনারা ইভিএম’র কারচুপির মাধ্যমে তাকে পরাজিত করেছেন। শ্রমিক শ্রেণির লোকজন তাকে ভোট দিতো, আপনারা সেই দিন কারখানা খোঁলা রেখেছেন।

তাই শ্রমিকরা ভোট দিতে আসতে পারে নাই। ভোটে কারচুপি করার জন্য যতো রকমের অপকর্ম আছে, সব আপনারা একের পর এক করে গেছেন। এই নিশি রাতের সরকার, বাংলাদেশের জনগণের সাথে অনেক প্রতারণা করেছে। এখন সেই হিসাব নেয়ার সময় এসে গেছে। সেই দিন বেশি দূরে নয়। সেই আলো দেখতে পারছি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মোস্তাকুর রহমান, সেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আওলাদ হোসেন উজ্জল, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. এমএ জাহিদ, বিএনপির তথ্য প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান মাহমুদা হাবিবা, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল, সহ-সভাপতি এড. জাকির হোসেন, মহানগর মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক আয়শা আক্তার দিনা, সেচ্ছাসেবক দলেল সভাপতি আবুল কাউছার আশা, বিএনপি নেতা জাহাঙ্গির কমিশনার, ছাত্র দলের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি প্রমুখ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin