তীব্র গরমে ঘর ঠান্ডা রাখার কিছু উপায়

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

কয়েকদিনের তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। এসি ছাড়া বাঁচাই দায় হয়ে পড়েছে! কিন্তু এসির খরচ সবার পক্ষে বহন করা সম্ভব হয় না। বা সব জায়গায় এসিও নেই। কিন্তু জানেন কি এসি না চালিয়েই ঘর ঠান্ডা রাখা যায়? তাহলে জেনে নিন প্রাকৃতিক উপায়ে ঘর ঠাণ্ডা রাখার কিছু কৌশল।

লাইট:


টিউব লাইট জ্বালিয়ে রাখলে ঘর গরম হয়। তাই সম্ভব হলে কম আলোর এলইডি আলো ব্যবহার করুন। তাপ ছড়াবে কম।


টেবিল ফ্যান:


টেবিল ফ্যান রয়েছে বাড়িতে? প্রতিদিন দুপুরে ভ্যাপসা গরম থেকে বাঁচতে আপনার টেবিল ফ্যানটি জানালার কাছে নিয়ে চালিয়ে দিন। এটি বাইরের ঠান্ডা হাওয়া ভেতরে নিয়ে আসবে এবং ঘরের অসহনীয় গরম দূর হবে।

ভেন্টিলেটর:


ঘরে ভেন্টিলেটর থাকলে খুবই ভালো। তবে সেটি ভালো করে পরিষ্কার করে নিন।
বরফ রেখে ফ্যান চালান:
তাৎক্ষণিক এসির হাওয়া খেতে চান? টেবিল ফ্যানের সামনে গামলা ভর্তি বরফ রেখে ফ্যান চালিয়ে দিন। নয়তো একটি পানির বোতলে বরফ জমিয়ে ফ্যানের সামনে রাখুন। যখনই ফ্যান চালাবেন, বরফের ঠান্ডা হাওয়া ঘরকে শীতল করে তুলবে৷

পর্দা:


কাঠের জানলা হলে সমস্যা নেই। কিন্তু জানলা যদি কাঁচের হয় তবে গাঢ় রঙের পর্দা ব্যবহার করুন। হালকা রঙের পর্দা সূর্যের তাপ আটকায় না। জানলায় বা বারান্দায় ব্যবহার করুন খেসের পর্দা। খেস একরকমের ঘাস, তাপ আটকাতে সক্ষম। তাতে যদি একটু পানি ঢেলে দিতে পারেন, দেখবেন ঘর অনেক ঠান্ডা হয়ে গেছে।


ভেজা চাদর:


মোটা চাদর পানিতে ভিজিয়ে, শুকিয়ে নিয়ে, অল্প স্যাঁতসেতে ভাবটা রেখে পর্দার গায়ে সেঁটে দিতে পারেন। খসখসের বিকল্প হিসেবে ভালো কাজ করে।


বালিশ:


বিছানার চাদর ব্যবহার করুন হালকা রঙের পাতলা সুতির। তুলা তাপ টানে। তাই বালিশে ভরতে পারেন বাজরা বা চাল। গদির মাঝখানে একটা মাদুর পেতে রাখলে বিছানার গরম অনেকটাই কমে যাবে।

সূত্র : ইন্টারনেট

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin