ঢাকাসহ প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক নষ্ট করছেন মোদিঃরাহুল গান্ধী

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ভারতের প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক নষ্ট করছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এমন অভিযোগই করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক নিয়ে দ্য ইকোনমিস্ট পত্রিকার একটি রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতেই রাহুল গান্ধী টুইট করে বলেছেন, কংগ্রেস দীর্ঘদিন চেষ্টা করে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করেছিল। বেশ কয়েক দশক লেগেছিল এই সম্পর্ক তৈরি করতে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সেই সম্পর্ক নষ্ট করছেন।

টুইটে ওই রিপোর্টও দিয়েছেন রাহুল। রিপোর্টের শিরোনাম ‘বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক দুর্বল হচ্ছে, চীনের সঙ্গে শক্তিশালী হচ্ছে’। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাহুলের মন্তব্য, ”প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে বন্ধুহীন হয়ে থাকাটা ভয়ঙ্কর।”

গত কয়েক মাসে ভারতের করোনা পরিস্থিতি, বেহাল অর্থনীতি, বেকারের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া, সাধারণ মানুষের উপর বোঝা চাপানো, কৃষি বিল নিয়ে ভোটাভুটি না করা, সংসদ সদস্যদের সাসপেন্ড করা নিয়ে নরেন্দ্র মোদির সমালোচনা করেন রাহুল। কিন্তু ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক বা প্রতিবেশীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব নিয়ে মুখ খোলেননি। এ বার সেটা নিয়েও মোদিকে দুষলেন তিনি।

আসলে ইকোনমিস্টের রিপোর্টে বলা হয়েছে, সম্প্রতি বাংলাদেশের সাথে ভারতের সম্পর্ক খারাপ হয়েছে। আর এই অবস্থায় চীন বাংলাদেশের সাথে সম্পর্ক ভালো করার চেষ্টা করছে। গত কয়েক মাস ধরে লাদাখে ভারত ও চীনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। প্রবল উত্তেজনা রয়েছে। সেনা ও মন্ত্রী পর্যায়ে একাধিকবার আলোচনার পরেও পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। এই অবস্থায় বাংলাদেশের সাথে চীনের সম্পর্ক ভালো হওয়া মানে ভারতের কাছে অশণিসংকেত। কারণ, প্রতিবেশীদের মধ্যে বাংলাদেশের সাথেই সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক ছিল ও আছে ভারতের।

সেখানেই রাহুলের অভিযোগ, মোদির নীতির জন্য বাংলাদেশসহ সব প্রতিবেশীর সাথে ভারতের সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে। পাকিস্তানের সাথে ভারতের সম্পর্ক আগে থেকেই খারাপ। সম্প্রতি চীনের সাথে সম্পর্ক তলানিতে।

নেপালও নতুন ম্যাপ প্রকাশ করে ভারতীয় এলাকা দাবি করেছে। তারপর নেপালের সাথেও সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। মিয়ানমার ও শ্রীলঙ্কার সাথেও সম্পর্ক খুব ঘনিষ্ঠ নয়। শুধু ভূটানের সাথেই দিল্লির সম্পর্ক ভালো। বাংলাদেশের সাথে চীন সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ করছে বোঝার পরই সম্প্রতি পররাষ্ট্র সচিবকে ঢাকা পাঠিয়েছিলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মোদি। অঘোষিত সেই সফরের পর ভারত জানিয়েছিল, তারা এক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে একাধিক প্রকল্পের কাজ শেষ করবে। 

সূত্রঃ প্রাইম নিউজ বিডি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin