ডিসি বললেন অনেক চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলরদের ডাকলেও পাওয়া যায় না

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জে ৫০ মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির আঙিনায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে এ কর্মসূচিতে অংশ নেন জেলা প্রশাসক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

আয়োজনে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রুহুল আমিন উপস্থিত থাকাতে ধন্যবাদ জানান জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘এই ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে আমাদের মতো পেয়েছি। অনেক কাউন্সিলরকে ডাকলেও কিন্তু আসে না। অনেক চেয়ারম্যানও আসে না। অথচ তারা আপনার, আমার আশ্রয়-ভালোবাসা পেয়েই কিন্তু চেয়ারম্যান হয়েছে।

উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে আপনারা অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন। মুক্তিযোদ্ধারা দেশকে ভালোবেসে সম্মুখযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। সেই মুক্তিযোদ্ধাদের প্রাপ্ত সম্মান, মর্যাদা দেওয়া আমাদের কর্তব্য। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে আপনাদের বাড়ির আঙিনায় বৃক্ষরোপণ করা হলো। আপনাদের ঋণ শোধ করার মতো নয়। এই কর্মসূচি আপনাদের প্রতি সামান্য সম্মান প্রদর্শন মাত্র। আপনারা আমাকে জানালে আমি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আরও চারাগাছ দেবো।

নতুন প্রজন্মকে দেশের ও মানুষের উপকারে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে ডিসি জসিম উদ্দিন বলেন, ‘আমি হয়তো দশ বছর চাকরিতে থাকবো না, আপনারাও অনেকে থাকবেন না। নতুন প্রজন্মকে এই কাজগুলো ধরে রাখতে হবে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে না, এই কথা অনেকেই বলেছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ উন্নতির দিকে এগোচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন উদ্যোগের কথা জানিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের জন্য আমাদের অনেক কিছু করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী কিন্তু মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের অনেক সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছেন। ব্যক্তিগত উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড অফিস থেকে বৃত্তিরও ব্যবস্থা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এইটা থেকে কিন্তু অনেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এই দিকগুলো আমাদের খেয়াল রাখতে হবে।’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের কমান্ডার শাহ্জাহান ভূইয়া জুলহাস, দৈনিক সংবাদের চীফ রিপোর্টার সালাম জুবায়ের, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রুহুল আমিন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক শরীফ উদ্দিন সবুজ, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সহকারী কমান্ডার এহসান কবির রমজান, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসমত আলী প্রধান প্রমুখ।

এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান সাউদ, আব্দুল হামিদ মোল্লা ও আব্দুল মজিদ সাউদের বাড়ির আঙিনায় তিনটি চারাগাছ রোপণ করেন জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন। পর্যায়ক্রমে ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে বৃক্ষরোপণ করা হয়।

সূত্রঃপ্রেস নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin