টানা ৫ ঘণ্টার বৈঠক : দ্রুত খুলে দেওয়া হবে লিবার্টি ও মিডল্যান্ড

শেয়ার করুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা শিল্পাঞ্চলের রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা মাইক্রোফাইবার গ্রুপের দুটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান লিবার্টি নীটওয়্যার লিঃ ও মিডল্যান্ড নীটওয়্যার লি: অচিরেই যাতে খুলে দেওয়া যায় সে লক্ষ্যে বৈঠক হয়েছে।

গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বিকেএমইএ এর সভাপতি এমপি সেলিম ওসমান, শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ, কারখানা কর্তৃপক্ষ ও শিল্প পুলিশের কর্মকর্তাদের টানা ৫ ঘণ্টার বৈঠকে আগামী ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করে এর রিপোর্ট প্রদান এবং সে আলোকে দ্রুত সমস্যা সমাধান করে কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এ কারখানার কতিপয় উচ্ছশৃংখল শ্রমিক গত ৬ অক্টোবর বিকেলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কারখানা উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ করে সার্ভার রুমের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে ও সিসিটিভি ফুটেজ ধ্বংস করার জন্য কালো কাপড় দিয়ে বেধে রাখে। কারখানার অভ্যন্তরে ভাংচুর চালায় এবং কর্মরত জিএম, এজিএমসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মারধর করে ও কারখানা থেকে বের হওয়ার প্রদান গেট সহ সকল গেট বন্ধ করে দেয় এর পরিপ্রেক্ষিতে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

পরবর্তীতে ব্যাপক ভাংচুরে প্রায় কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়েছে দাবি করে বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ইং এর ১৩ (১) ধারা অনুসারে অনির্দিষ্টকালের জন্য গার্মেন্টস দুটি বন্ধ ঘোষণা করে মালিক কর্তৃপক্ষ।

এ নিয়ে কয়েকদিন শ্রমিকেরা আন্দোলনও করে। তখন শ্রমিক লীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ সমস্যা সমাধানের জন্য এমপি সেলিম ওসমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘মঙ্গলবার দুপুর ১২টা হতে বিকেল ৫টা পর্যন্ত টানা বৈঠক হয়েছে। এতে সিদ্ধান্ত হয়েছে উক্ত শ্রমিক অসন্তোষ ও অস্থিতিশীলতার সূত্রপাত কি কারণে হয়েছে, কোথা থেকে হয়েছে, কারা কারা এর সাথে জড়িত ইত্যাদি পুঙ্খানুপঙ্খভাবে পর্যালোচনার জন্য একটি নতুন তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। এ কমিটির রিপোর্টের আলোকে আইনগত ও অন্যান্য সমস্যা সমাধান করে কিভাবে দ্রুত কারখানা খুলে দেওয়া যায় সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সূত্রঃ নিউজ নারায়ণগঞ্জ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin